সহপাঠীদের সাথে খেলতে গিয়ে বিপত্তি : আন্দুলবাড়িয়ায় পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু

আন্দুলবাড়িয়া প্রতিনিধি: বাবা ছেড়েছে ঘর, মা গেছে মাঠে অন্যের ক্ষেতে ঝাল তুলতে। অলস সময় ব্যস্ত কাটাতে ছেলে গেছে খালুবাড়ি সাথীদের সাথে খেলতে। খালাতো ভাই ওহিদুল, জয় ও হাসির সাথে পুকুরপাড়ে খেলতে গিয়ে পুকুরের পানিতে ডুবে শিশু মোস্তাক হোসেনের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। গতকাল সোমবার বেলা ৩টার দিকে জীবননগর উপজেলার আন্দুলবাড়িয়া ইউনিয়নের শাহাপুর তাঁতির পুকুরে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার তিতুদহ ইউনিয়নের সড়াবাড়িয়া গ্রামের সানোয়ার হোসেনের সাথে জীবননগর উপজেলার আন্দুলবাড়িয়া ইউনিয়নের শাহাপুর গ্রামে মৃত আব্দুল খালেকের মেয়ে মাছুরা খাতুনের গত ৫ বছর আগে বিয়ে হয়। সুখ শান্তির সাথে সংসার করাকালে ছেলে মোস্তাক হোসেনের জন্মের কয়েক বছর পর দাম্পত্য কলহ দেখা দেয়। মাছুরা খাতুন তার একমাত্র সন্তানকে নিয়ে বাপের বাড়িতে গিয়ে বসবাস করছিলো। কয়েক মাস পূর্বে সানোয়ার হোসেন তার স্ত্রীকে তালাক দেয়। এ ঘটনায় সানোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে মাছুরা খাতুন বাদী হয়ে আদালতে মামলা দায়ের করে। বর্তমানে মামলাটির কার্যক্রম আদালতে বিচারাধীন। এরই মাঝে গতকাল সোমবার সকালে মাছুরা খাতুন অন্যের ক্ষেতে ঝাল তুলতে গেলে শিশু ছেলে মোস্তাক (৪) অলস সময় ব্যস্ত কাটাতে গ্রামেই খালু আব্দুল মণ্ডলের বাড়িতে যায়। খালাতো ভাই ওহিদুল, জয় ও সাথীর সাথে বাড়ির পাশে তাঁতির পুকুর পাড়ে খেলছিলো। পা পিঁছলে পুকুরের পানিতে ডুবে তার মর্মান্তিক মৃত্য ঘটে। স্বজনরা তার লাশ উদ্ধার করার পর গ্রামে শোকের ছায়া নেমে আসে। খবর পেয়ে বিকেলে তার পিতা সানোয়ার হোসেন ছেলের লাশ দেখে তাকে হত্যার অভিযোগ তুলে বাড়ির উদ্দেশে রওনা দিয়েছে বলে প্রত্যক্ষদর্শীসূত্রে জানা গেছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত রাত ১০টার দিকে পিতা-মাতার রশি টানাটানির কারণে শিশুটির লাশ দাফন করা সম্ভব হয়নি।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *