শুকলালকে বেদম প্রহার ॥ গুরুতর জখম

চুয়াডাঙ্গা কার্পাসডাঙ্গায় বিদ্যালয়ের জমি নিয়ে বিরোধের জের

স্টাফ রিপোর্টার: বেদম প্রহারে গুরুতর আহত রবিউল হোসেন শুকলালকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গতকাল রোববার সন্ধ্যায় দামুড়হুদার কার্পাসডাঙ্গা ব্রিজমোড়ে তাকে লাঠি দিয়ে বেদম প্রহার করা হয়। হাত দিয়ে ঠেকাতে গিয়ে এক হাতের হাড়ও গুড়িয়ে গেছে। কার্পাসডাঙ্গার কোমরপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জমি নিয়ে সৃষ্ট বিরোধের জের ধরে তাকে মারধর করা হয়েছে বলে অভিযোগ।
রবিউল ইসলাম শুকলাল কার্পাসডাঙ্গা কোমরপুর গ্রামের লস্কর আলীর ছেলে। লস্কর আলী কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান। তিনি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জমিদাতা। রবিউল ইসলাম শুকলাল (৫২) বলেছেন, পিতা লস্কর আলীর নামে থাকা ৩৬ শতক জমির মধ্যে তিনি ১৭ শতক জমি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দিয়েছেন। বাকি জমি আমাদের তিন ভাইয়ের। ওই বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান কচি। যুবলীগ নেতা। আমাদের সাথে ওই জমি নিয়ে অসৌজন্যমূলক আচরণ শুরু করেন। মতবিরোধ দানা বাধে। হামলার ঘটনাও ঘটে। ৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি রবি ডাক্তার আমাদের মধ্যে আপস করিয়ে দেবেন বলে ডাকেন। সন্ধ্যায় ব্রিজমোড়ে রবি ডাক্তারের সাথে কথা বলে মোটরসাইকেল উঠতেও মোস্তাফিজুর রহমান কচিসহ তার লোকজন আমার ওপর হামলে পড়ে। লাঠি দিয়ে বেদম মারপিট করে। পরে স্থানীয়রা উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করিয়েছে। লাঠিপেটায় হাতের হাড় ভেঙেছে। চিকিৎসা চলছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *