শীতের মাঝে বর্ষা : রাস্তা ঘাটের দুর্দশায় বেড়েছে দুর্ভোগ

স্টাফ রিপোর্টার: পৌষ আসতে আর তিনদিন বাকি, অগ্রাহায়ণের শেষে এপার-ওপার দু’বাংলা জুড়ে বর্ষার আমেজে শুরু হয়েছে বৃষ্টি। বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপের প্রভাবে গতপরশু আকাশ গুমট বাঁধলেও গতকাল শনিবার সকাল থেকেই শুরু হয়েছে বৃষ্টি। ঢাকায় ৯ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হলেও চুয়াডাঙ্গা, ভোলা ও শ্রীমঙ্গলে ৪০ মিলিমিটার করে বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। আজও বৃষ্টির পূর্বাভাস দেয়া হয়েছে। তবে বৃষ্টির প্রবণতা ক্রমশ কমতে পারে। এ পুর্বাভাস দিয়ে আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, কোথাও কোথাও ভারি বর্ষণেরও সম্ভাবনা রয়েছে।
দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা গতকাল কক্সবাজারে ২৮ দশমিক শূন্য এবং সর্বনিম্ন তেতুঁলিয়ায় ১২ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়। চুয়াডাঙ্গায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিলো ২১ দশমিক ৭ আর সর্বনিম্ন ছিলো ১০ দশমিক শূন্য ডিগ্রি সেলসিয়াস। ফলে না শীত, না গরমে অস্বস্তিতে পড়তে হয়েছে চুয়াডাঙ্গা মেহেরপুর ও ঝিনাইদহসহ পার্শ্ববর্তী এলাকাবাসীকে। কারণ, লেপ নিলে ঘামতে হয়েছে, কাঁতায় লেগেছে শীত। আর সারা দিনের গুড়ি গুড়ি বৃষ্টিতে পোহাতে হয়েছে ভোগান্তি। এর মাঝে দেখা দিয়েছে ডায়রিয়া রোগের প্রাদুর্ভাব। ডায়রিয়া রোগে আক্রান্ত ৯৫ জন রোগী গতকাল চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলো। এর মধ্যে ৭৫ জন শিশু। অপরদিকে দিনের বিরামহীন গুড়ি গুড়ি বৃষ্টিতে চুয়াডাঙ্গা শহরবাসীকে পোহাতে হয়েছে বাড়তি কাদার বিড়ম্বনা। রাস্তার পাশে খোড়াখুড়ি আর সড়কের মাঝে বড় বড় গর্তের কাদাপানি মেখে ফিরতে হয়েছে বহু পথচারীকে। সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের সামনে পিচ্ছিল পরিস্থিতি বাড়িয়েছে দুর্ঘটনার শঙ্কা। তবে সংস্কারের কাজ শুরু হয়েছে দেখে স্বস্তিও নেমেছে স্থানীয়দের মাঝে। চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসকের বিশেষ উদ্যোগে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের তরফে ঝিনাইদ বাসস্ট্যান্ড ও বাদুরতলা এলাকার সড়ক চলাচলের উপযোগি করতে দ্রুত কাজ করা হচ্ছে খবর ছড়িয়েছে। ডিসেম্বরের বৃষ্টিতে মাঠের কিছু খাটো আবাদের ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন এলাকার কৃষকদের অনেকে। দামুড়হুদার কাপার্সডাঙ্গায় পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা ঠিকমতো না থাকায় অল্প বৃষ্টিতেই জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন। সরোজগঞ্জ বাজারেও প্যাঁচপ্যাঁচে কাঁদায় এক ঘিন্নাটে পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন স্থানীয় দোকানিদের অনেকে। চুয়াডাঙ্গা বড়বাজার পুরাতনগলিই শুধু নয়, ফেরিঘাট রোডসহ নিচের বাজারের কাদাটে পরিবেশ দেখে পরিষ্কার ডাঙ্গা তথা চুয়াডাঙ্গা নামটাই বদলাতে চাইবেন অনেকে। কিছু সড়কের ধারে পয়ঃনিষ্কাশনের ময়লার স্তুপে বৃষ্টির পানি পড়ে ছড়াচ্ছে বিষাক্ত বায়ু।
গতকাল সন্ধ্যায় ২৪ ঘন্টার আবহাওয়ার পূবার্ভাসে বলা হয়েছে, পশ্চিমমধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত গভীর নিম্নচাপটি দুর্বল হয়ে উত্তর-উত্তরপশ্চিম দিকে উত্তরপশ্চিম বঙ্গোপসাগর এবং তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। ঢাকা, ময়মনসিংহ, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় এবং রংপুর বিভাগের অনেক জায়গায় হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি হতে পারে। সেইসাথে ঢাকা, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারি থেকে ভারি বর্ষণ হতে পারে। সারাদেশে রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে এবং দিনের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে। পরবর্তী ৪৮ ঘন্টায় বৃষ্টিপাতের প্রবণতা কমে যেতে পারে। আকাশ মেঘমুক্ত হওয়ার সাথে সাথে শীতের তীব্রতা বাড়তে শুরু করবে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *