শিশুকে দিয়ে বোমা উদ্ধার : এসআই পান্নু বরখাস্ত

 

চুয়াডাঙ্গা দক্ষিণ হাসপাতালপাড়ার রাস্তায় বোমা : উদ্ধারে গিয়ে নির্বোধের পরিচয়

স্টাফ রিপোর্টার: কিশোরকে দিয়ে বোমা উদ্ধার করানো এসআই ফকির পান্নু মিয়াকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার মো. রশীদুল হাসান গতকাল বুধবার দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এসআই ফকির পান্নু মিয়া চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় কর্মরত ছিলেন।

জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা জেলা শহরের দক্ষিণ হাসপাতালপাড়ার জোসার মোড়ের রাস্তায় গত ১৮ জুলাই রাত ৯টার দিকে বোমা সাদৃশ্য বস্তু দেখে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেয়। সদর থানার এসআই ফকির পান্নু মিয়া সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে বোমা উদ্ধারের জন্য ঘটনাস্থলে পৌঁছান। বোমা সাদৃশ্য বস্তু উদ্ধারের দৃশ্য দেখতে অনেকেই ভিড় জমান। উৎসুক জনতার মাঝে ছিলো কিশোর শিপন (১৫)। আইনের দৃষ্টিতে সে শিশু। অবুঝ শিশুকে দিয়ে বোমা উদ্ধারের বিষয়টি জানাজানি হলে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার ঝড় ওঠে। দৈনিক মাথাভাঙ্গা পত্রিকায় সচিত্র প্রতিবেদনও প্রকাশিত হয়। বিষয়টি চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপারের দৃষ্টিগোচর হয়। তিনি কারণ দর্শানো নোটিশ দেন। এরই মাঝে শিশু শিপনকে দিয়ে স্বেচ্ছায় বোমা সাদৃশ্য বস্তু উদ্ধারের সাক্ষ্য দেয়ার জন্য প্রভাবিতই শুধু করা হয় না, অভিযোগ ওঠে, তার নিকট থেকে শাদা কাগজে স্বাক্ষরও করিয়ে নেন এসআই পান্নু। এরই এক পর্যায়ে এসআই পান্নুকে সাময়িক বরখাস্ত করে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা রুজু করা হয়। চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার জানান, গত ১৮ জুলাই রাতে এসআই ফকির পান্নু মিয়া চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার দক্ষিণ হাসপাতালপাড়া থেকে এক শিশুকে দিয়ে বোমা উদ্ধার করেন। বিষয়টি অবগত হয়ে তদন্তের পর এই শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, কিশোর শিপন চুয়াডাঙ্গা সুমিরদিয়া কলোনিপাড়ার দরিদ্র পরিবারের ছেলে। তাকে দিয়ে বোমা উদ্ধার করিয়ে পানিভর্তি বালতিতে রাখানোর পর থানায় নেয়া হয়। থানায় নিয়ে বোমাটি বালতি পরিবর্তনের পর ছেড়ে দেয়া হয়।

Leave a comment

Your email address will not be published.