রেইন উইকে জেনারেটর নেয়াকে কেন্দ্র করে যুবলীগের দুপক্ষের দ্বন্দ্ব :সংঘর্ষে আহত ৮

 

চুয়াডাঙ্গা দামুড়হুদার দর্শনা কেরুজ চিনিকলের কোটি টাকা মূল্যের জেনরেটর নামমাত্র মূল্যে টেন্ডার

 

দর্শনা অফিস: ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান হোসেন ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কশপের লাখ লাখ টাকার ধান্দায় বাধা দেয়ায় যুবলীগের নেতাকর্মীদের সাথে দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হয়েছে। ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের সাথে যুবলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে ঘটেছে হামলার ঘটনা। আহত হয়েছে যুবলীগ নেতাসহ কমপক্ষে ৮ জন। ভাঙচুর করা হয়েছে হোসেন ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কশপ। থানায় পাল্টাপাল্টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। গ্রেফতার হয়নি কেউ।

জানা গেছে, কেরুজ চিনিকলসহ দেশের বিভিন্ন চিনিকলে গত তিন মাড়াই মরসুমের শ’ শ’ কোটি টাকার চিনি অবিক্রিত রয়েছে। এদিকে খেয়াল না থাকলে বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প করপোরেশন উদ্যোগ নিয়েছে সবক’টি চিনিকলের অকেজো জেনারেটর বিক্রির। কেরুজ চিনিকলের প্রায় কোটি টাকা মূল্যের ৬টি অকেজো জেনারেটরের টেন্ডার মাফিক নামমাত্র মূল্যে ক্রয় করে রেইন উইক কর্তৃপক্ষ। জেনারেটরগুলো খুলে কুষ্টিয়া রেইন উইকে পৌঁছানের জন্য টেন্ডার পায় দর্শনা হোসেন ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কশপ। ৬টি জেনারেটরের আনুমানিক ওজন হবে ৮০/৯০ মেট্রিক টন। প্রতিটনের জন্য ১ হাজার ৬শ ৫০ টাকায় চুক্তি নেয় ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান হোসেন ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কশপ। অভিযোগ উঠেছে, উন্নত যন্ত্রাংশ দিয়ে তৈরি অকেজো এ জেনারেটরগুলো খুলে মূল্যবান মালামাল পাল্টিয়ে নেয়ার পরিকল্পনা করে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান। এ লক্ষ্যেই গতকাল শনিবার সকাল ৯টার দিকে জেনারেটরগুলো খোলার প্রক্রিয়া শুরু করে। ঘটনাটি টের পেয়ে সরকারি সম্পদ রক্ষায় কেরুজ চিনিকলের শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের পক্ষ থেকে বাধা দেয়া হয়হোসেন ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কশপের স্বত্বাধিকারী আকবর হোসেন ও ছেলে মাহবুবুর রহমান ছট্টুকে। এ নিয়ে ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দের সাথে কথাকাটাকাটি হয়।

দর্শনার যুবলীগের নেতাকর্মীদের অভিযোগে জানা গেছে, হোসেন ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কশপ কর্তৃপক্ষের ভাড়াটিয়া গুন্ডাবাহিনীর উপস্থিতিতে সরকারের মূল্যবান সম্পদ খোলার পাঁয়তারা করছিলো। পরে যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে জেনারেটর খুলতে বাধা দিলে বাধে দ্বন্দ্ব। এ দ্বন্দ্বে আহত হয়েছেন যুবলীগ নেতা সাইফুল ইসলাম হুকুম, খালিদ হোসেন মিঠু, সাবেক পৌর কমিশনার জয়নাল আবেদীন নফর, মুনজুরুল ইসলাম। যুবলীগ ও ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে আহতদের ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান হোসেন ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কশপের ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী বলে অভিযোগ করা হয়েছে। বেলা ১১টার দিকে বেশ কয়েকজন যুবলীগ ও ছাত্রলীগের কর্মী হামলা চালায় দর্শনা বাসস্ট্যান্ডস্থ ঠিকাদার আকবর হোসেনের হোসেন ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কশপে। হামলাকারীরা সেখানে কাউকে না পেলে আংশিক ভাঙচুর করেছে। খবর পেয়ে দামুড়হুদা ও দর্শনা পুলিশ যৌথ অভিযান চালিয়ে হামলাকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

এদিকে যুবলীগ নেতা শেখ আসলাম আলী তোতা, আমিরুল ইসলামসহ বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। এ হামলার ঘটনায় যুবলীগের দুপক্ষের দ্বন্দ্ব বলে শোনা গেলে একপক্ষ অপরপক্ষকে যুবলীগ নেতাকর্মী হিসেবে মানতে নারাজ। কেরুজ চিনিকলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কৃষিবিদ আজিজুর রহমান কোনো মন্তব্য না করে জানিয়েছেন, জেনারেটরে বিক্রির টেন্ডার কেরুজ চিনিকল কর্তৃপক্ষের দেয়া হয় না। এছাড়া এ দ্বন্দ্ব চিনিকল এলাকার বাইরে। এ ঘটনায় দামুড়হুদা থানায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগের খবর পাওয়া গেলেও পুলিশ কোনো পক্ষের কাউকে গ্রেফতার করতে পেরেছে কিনা জানা যায়নি। গতকাল দিনভর দর্শনায় টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছিলো। বিভিন্ন পয়েন্টে ছিলো অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন।

 

Leave a comment

Your email address will not be published.