রিমান্ড শেষে তিনজনকে আদালতে নেয়া হচ্ছে আজ

প্রতিপক্ষের হামলায় হাত হারানো আবু জাফর মন্টুকে রাজশাহী থেকে চুয়াডাঙ্গায় স্থানান্তর

 

স্টাফ রিপোর্টার: সামান্য পাওনা টাকা আদায় করতে গিয়ে সৃষ্টি বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের ধারালো অস্ত্রের কোপে হাত হারানো আবু জাফর মন্টুর শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়েছে। রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে গতকাল মঙ্গলবার তাকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিয়ে পুনরায় ভর্তি করা হয়েছে।

ধারালো অস্ত্র দিয়ে আবু জাফর মন্টুকে ক্ষতবিক্ষত করা মামলায় গ্রেফতারকৃত তিনজন ইরান, রাব্বি ও জিতুর তিন দিনের পুলিশি রিমান্ড শেষে আজ বুধবার আদালতে সোপর্দ করা হচ্ছে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা চুয়াডাঙ্গা সদর থানার এসআই কাইয়ুম বলেছেন, রিমান্ডের তিন আসামি হামলার কথা স্বীকার করেছে। হামলার অন্যতম হোতা শান্তিপাড়ার বাবু ও তার ছেলে বাপ্পিকে ধরতে পুলিশি তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে। গতরাতে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত এদেরকে পুলিশ ধরতে পারেনি। এই বাবুর নিকট টাকা পেতো চুয়াডাঙ্গা বুজরুকগড়গড়ি বনানীপাড়ার (বুদ্ধিমানপাড়া) আবু জাফর মন্টুর ছেলে বুজরুকগড়গড়ি স্কুলমোড়ের চা দোকানি লাল্টু। পাওনা টাকা চাওয়ার কারণেই পার্শ্ববর্তী শান্তিপাড়ার বাবু ও তার ছেলে বাপ্পি মহিলাকলেজপাড়ার সিরাজের ছেলে ইরান, পলাশপাড়ার বাদশার ছেলে রাব্বী ও লাভলুর ছেলে জিতুসহ কয়েকজনকে ডেকে নিয়ে হামলা চালায়। এ সময় আবু জাফর মন্টু হামলাকারীদের ধারালো অস্ত্রের কোপে ক্ষতবিক্ষত হন। তার একটি হাত শরীর থেকে বিছিন্ন হয়ে পড়ে। আবু জাফর মন্টু চুয়াডাঙ্গা জজকোটের অর্ডারলি পদে চাকরি করেন।

Leave a comment

Your email address will not be published.