যুক্তরাষ্ট্রেরও না

স্টাফ রিপোর্টার: ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও কমনওয়েলথের পর এবার যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের নির্বাচনে পর্যবেক্ষক না পাঠানোর কথা জানিয়েছে। আগামী ৫ জানুয়ারির জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে ফের উদ্বেগ প্রকাশ করেছে তারা। এ নির্বাচনে তারা কোনো পর্যবেক্ষকও পাঠাবেন না। তবে অধিক উপযোগী পরিবেশ নিশ্চিত হলে পরে এ প্রক্রিয়ায় জড়িত হতে প্রস্তুত তারা। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র জেন পসাকি এক বিবৃতিতে পরিষ্কার করে বলেছেন এ কথা। বিবৃতিতে তিনি বলেন, অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজন করে গণতন্ত্রের প্রতি প্রতিশ্রুতি পালনের সুযোগ এসেছে বাংলাদেশের সামনে এটা বিশ্বাস করে যুক্তরাষ্ট্র। এমন অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন হতে হবে যা বাংলাদেশের মানুষের চোখে বিশ্বাসযোগ্য হয়। যুক্তরাষ্ট্র গভীর হতাশার সাথে বলছে যে, আগামী ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে সংসদের অর্ধেকের বেশি প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। ফলে জনগণের কাছে বিশ্বাসযোগ্য নির্বাচন অনুষ্ঠানের পন্থা বের করার জন্য বড় রাজনৈতিক দলগুলো এখনও কোনো সমঝোতায় পৌঁছেনি। এর প্রেক্ষিতে যুক্তরাষ্ট্র এ নির্বাচনে কোনো পর্যবেক্ষক পাঠাবে না।

এদিকে নিজের, দূতাবাসের এবং সহকর্মীদের নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বিগ্ন ঢাকায় নিযুক্ত ইউরোপীয় ইউনিয়ন ডেলিগেশন প্রধান উইলিয়াম হানা। গতকাল পররাষ্ট্র দপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠক করে তিনি এ উদ্বেগের কথা জানান। একই সাথে ইইউ দূতাবাস, কূটনীতিকদের বাসভবনসহ পুরো কূটনৈতিক জোনে আরও নিরাপত্তা বাড়ানোর আহ্বান জানান। একাধিক কূটনৈতিক সূত্র মতে, দুপুরে পররাষ্ট্র ভবনে যান রাষ্ট্রদূত। সেখানে রাষ্ট্রাচার ও ইউরোপ অনুবিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠক করেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *