মেহেরপুর হাতিভাঙ্গা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৫০ ছাত্রী অজ্ঞান চিকিৎসা নিয়ে হাসপাতাল ছেড়েছে তারা

মেহেরপুর অফিস: মেহেরপুর সদর উপজেলার হাতিভাঙ্গা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রায় অর্ধশত ছাত্রী অজ্ঞান হয়ে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে স্কুলে অ্যাসেম্বেলি চলাকালীন সময় একজন অসুস্থ হওয়ার ঘটনা ঘটে। এসময় আরও কয়েকজন অসুস্থ হলে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাদের বাড়ি পাঠানো হয়। বাড়ি যাওয়ার পথে একে একে প্রায় ৫০ জন ছাত্রী অসুস্থ হয়ে পড়ে। তাদের অ্যাম্বুলেন্সে এবং বিভিন্ন পরিবহনযোগে দ্রুত হাসপাতালে নেয়া হয়। আক্রান্তদের সকলে ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির ছাত্রী।
হাতিভাঙ্গা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শফিকুল ইসলাম জানান, স্কুল শুরুতে অ্যাসেম্বেলি চলাকালীন সময় ঘটনার সূত্রপাত। এর পরপরই ছাত্রীরা কিছুটা হুড়াহুড়ি শুরু করে দেয়। পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে স্কুল ছুটির ঘোষণা করা হয়। ছাত্রীরা বাসায় যেতে থাকে। এরপর সংবাদ আসতে থাকে বাসায় যাওয়ার পথে আরও কয়েকজন ছাত্রী মাথা ঘুরে পরে গেছে। দ্রুত তাদের হাসপাতালে নেয়ার ব্যবস্থা করা হয়।
হাসপাতালে চিকিৎসাধীন নবম শ্রেণির ছাত্রী সুরাইয়া আক্তার খুশি জানায়, দশম শ্রেণির ছাত্রী বৈশাখী আক্তার অ্যাসেম্বেলির সময় মাথা ঘুরে পরে যায়। স্কুল ছুটি দিলে বাসায় যাওয়ার পথে আমার প্রথমে মাথায় প্রচ- যন্ত্রণার পাশাপাশি নিঃশ্বাস আটকীয়ে আসছিলো। একপর্যায়ে সে অজ্ঞান হয়ে পড়ে।
মেহেরপুর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক মেডিকেল অফিসার ডা. মিজানুর রহমান জানান, এ পর্যন্ত অর্ধশত শিক্ষার্থীকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। এটি গণমনসতাত্ত্বিক অসুখ নামের একটি রোগ। এতে একজন আক্রান্ত হলে পাশের অন্যদের মধ্যেও দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। তবে এতে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই বলে দাবি করেন ওই চিকিৎসা কর্মকর্তা। তিনি বলেন, কাউন্সেলিংয়ের মাধ্যমে এ রোগ সহজেই প্রতিরোধ করা যায়।
এদিকে শেষ সংবাদ পাওয়া পর্যন্ত প্রধান শিক্ষক শফিকুল ইসলাম জানান, চিকিৎসা নিয়ে সন্ধ্যার আগে সকল ছাত্রী বাড়ি ফিরেছে এবং বর্তমানে তারা সুস্থ রয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *