মেহেরপুরে ব্র্যাক ব্যাংকের বিরুদ্ধে অর্থ বানিজ্য ও গ্রাহক হয়রানির অভিযোগ

 

মেহেরপুর অফিস: মেহেরপুর ব্র্যাক ব্যাংকের বিরুদ্ধে বিআরটিএ’র গ্রাহকদের সাথে অসাদাচরণ, অর্থ বানিজ্য ও হয়রানির অভিযোগ পাওয়া গেছে। ব্র্যাক ব্যাংক এবং সরকারি প্রতিষ্ঠান বিআরটিএ’র মধ্যে চুক্তি হয় গাড়ির রেজিস্ট্রেশন, ফিটনেসসহ কয়েক ধরনের টাকা জমা করানোর। সেটার মেয়াদ ছিলো ৩১ মে/ ১৬ পযর্ন্ত।

গত মঙ্গলবার শেষ দিনে আবেদনকৃত প্রার্থীদের ছিলো উপচে পড়া ভীড়। মেহেরপুর জেলাসহ কুষ্টিয়া ও চুয়াডাঙ্গার কয়েক শ লোক দিনব্যাপি লাইনে দাঁড়িয়ে টাকা জমার জন্য অপেক্ষা করতে থাকেন। কয়েক দিন যাবত ও শেষ দিবসে সারাদিন অপেক্ষার পর ব্যাংক কর্মকর্তা ও কর্মচারিরা ইন্টারনেট সমস্যার কারণে টাকা জমা নেয়া সম্ভব হচ্ছে না বলে জানান। কিন্তু ব্যাংক কর্মকর্তা ও কর্মচারিরা মোটা টাকার বিনিময়ে রাত সাড়ে আটটা পযর্ন্ত গোপনে কাজ চালিয়ে যায় বলে অভিযোগ আনেন গ্রাহকরা। এতে অনেক গ্রাহক হয়রানির স্বীকার হয়ে টাকা জমা দিতে ব্যর্থ হন।

টাকা জমা দিতে আসা ভুক্তভোগী আল কাঈফ মটরসের মালিক শফিউল আলম শিল্টু জানান, সারাদিন দাঁড়িয়ে থাকার পর হঠাত শেষ বেলায় এসে নেটের সমস্যা দেখিয়ে আমাদের টাকা জমা নেয়া হবে না বলে জানায় ব্র্যাক ব্যাংকের লোকজন। পরবর্তীতে দেখা যায়- রাত সাড়ে ৮টা পযর্ন্ত নিয়ম ভঙ্গ করে টাকা জমা নিচ্ছে। এর প্রতিবাদ করতে গেলে ব্র্যাক ব্যাংক কর্মকর্তা ও কর্মচারিরা স্থানীয় কিছু প্রভাবশালীদের ইন্ধনে উত্তেজিত হয়ে আমাদেরকে অশ্লীল ভাষায় গালি-গালাজ ও লাঞ্চিত করে বলে অভিযোগ করেন।

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *