মেহেরপুরের শৈলমারী গ্রামের শফিকুলকে ভারতে কুপিয়ে খুন

মেহেরপুর অফিস/গাংনী প্রতিনিধি: মেহেরপুর সদর উপজেলার সীমান্তবর্তী শৈলমারী গ্রামের শফিকুল ইসলাম (২৮) ভারতে খুন হয়েছেন। গত মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে মুরুটিয়া থানা এলাকার কাকজীপাড়ায় স্থানীয় দুর্বৃত্তরা তাকে কুপিয়ে ও গলায় ফাঁস দিয়ে খুন করে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে কাথুলী সীমান্তে বিজিবি-বিএসএফ পতাকা বৈঠকে এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছে বিএসএফ। তবে গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার আগে লাশ ফেরতে কথা থাকলেও তা সম্ভব হয়নি বলে জানিয়েছেন বিজিবি কাথুলী ক্যাম্প কমান্ডার।

নিহতের পারিবারিকসূত্রে জানা গেছে, তেরঘরিয়া গ্রামে একটি ডাকাতি মামলায় সাথে জড়িতে ৮ মাস আগে আত্মগোপন করেন শৈলমারী গ্রামের বাবু মিয়ার ছেলে শফিকুল। শৈলমারী গ্রামের চিহ্নিত এক ব্যক্তির সহায়তায় সে ভারতে পাড়ি জমায়। তার তত্ত্বাবধানে সে ভারতীয় একটি চরমপন্থি দলের সাথে সেখানে অবস্থান করছিলো। ওই ব্যক্তির আশ্বাসে জামিন নেয়ার জন্য শফিকুল দেশের আসার প্রক্রিয়া করছিলো। ভারতের স্থানীয় কিছু চরমপন্থির সাথে বিরোধের জের ধরে সে খুন হয়। গত মঙ্গলবার রাতে খুনের বিষয়টি জানতে পারে পরিবারের লোকজন। স্থানীয় বিজিবি ক্যাম্পে যোগাযোগ করে। তবে বিজিবির পক্ষ থেকে রাতে কোনো খবর নিশ্চিত করা সম্ভব হয়নি বিধায় গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে পতাকা বৈঠকের আমন্ত্রণ জানায় বিজিবি। সেমতে কাথুলী সীমান্তের ১৩৩ নং আন্তর্জাতিক সীমানা পিলারের ৩ এস পিলারের সন্নিকটের মাঠে গতকাল সকালে বিজিবি-বিএসএফ পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বিজিবির ৬ সদস্যদের নেতৃত্ব দেন কাথুলী কোম্পানি কমান্ডার সুবেদার ফজলুল হক।

অপরদিকে বিএসএফ ৬ সদস্যদের নেতৃত্বে ছিলেন ভারতের মুরুটিয়ার ৮৫ বিএসএফ’র তিনপুর ক্যাম্পের এসআই মাহিন্দ্র ঘোষ। পতাকা বৈঠকে নিহতের ছবি নিয়ে আসে বিএসএফ। তা দেখেই পরিবারের লোকজন লাশ শনাক্ত করেন। বিজিবির পক্ষ থেকে লাশ ফেরতে দাবি জানানো হয়। বিএসএফ কর্মকর্তা বিজিবিকে আশ্বস্থ করেন বলেন, মুরুটিয়া থানার মাধ্যমে লাশের ময়নাতদন্ত করে সন্ধ্যার আগে ফেরত দেয়া হবে। তবে গতকাল তা সম্ভব হয়নি তাই আজ দিনের যেকোনো সময় পকাতা বৈঠকের মাধ্যমে লাশ ফেরত পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছেন বিজিবি কোম্পানি কমান্ডার সুবেদার ফজলুল হক।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *