মেহেরপুরের পিরোজপুরে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি-জামায়াত সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ

 

১৫ জন আহত ৮টি বাড়ি ও দোকানে ভাচুর অগ্নিসংযোগ

মেহেরপুর অফিস: মেহেরপুর সদর উপজেলার পিরোজপুর গ্রামে বিএনপি-জামায়াত সমর্থকদের সাথে আওয়ামী লীগ সমর্থকদের সংঘর্ষে অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছেন। এ সময় বিএনপি-জামায়াত সমর্থকদের ৮টি বাড়ি এবং দোকানে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করা হয়। রাজনৈতিক বিরোধের জের ধরে গতকাল শনিবার সকাল ৮টার দিকে পিরোজপুর গ্রামের পশ্চিমপাড়ায় ওই ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়সূত্রে জানা গেছে, সকালে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী সমর্থকরা লাঠিসোঁটা নিয়ে বিএনপি-জামায়াত সমর্থকদের ওপর হামলা চালায়। এতে দু পক্ষের সংঘর্ষ শুরু হয়। এতে ওই গ্রামের মোহাম্মদ আলীর ছেলে আনারুল (৪৭), আনারুলের ৩ ছেলে মিলন (২৩), সাদ্দাম (২০) ও রিটোন (১৭) এবং আফতাব আলীর ছেলে সিদ্দিক (২২), জিনারুলের ছেলে রাজন (১৮), রমজান মণ্ডলের ২ ছেলে জাফর মণ্ডল (৫৭) ও নফর মণ্ডল (৫৪), হাবেল মণ্ডলের ছেলে আমজাদ হোসেন মাস্টার (৩৭) ও সোমজান মণ্ডলের ছেলে সামছুল হক মাস্টারসহ (৪৭) প্রায় ১৫ জন আহত হয়। আহতদের বেশিরভাগই বিএনপি-জামায়াত সমর্থক। আহতদের মেহেরপুর ইমপ্যাক্ট জীবনমেলা হাসপাতাল ও মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এদিকে সংঘর্ষের সময় বিএনপি-জামায়াতের নেতাকর্মীরা পিছু হঁটলে আওয়ামী লীগ সমর্থকরা ওই গ্রামের আনারুল, কালাম মিলিটারি ও জিয়ার বাড়ি ভাঙচুর করাসহ আগুন লাগিয়ে দেয়। হামলাকারীরা মুছা মণ্ডলের বাড়ি ও রাইস মিল এবং খালিদ হার্ডওয়ার, মাইন হার্ডওয়ার ও আব্দুস সালামের দোকানে হামলা চালিয়ে লুটপাট ও ভাঙচুর করে। এর মধ্যে কয়েকটি দোকানে অগ্নিসংযোগ করে হামলাকারীরা। পরে পুলিশ ও দমকল বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত হয়ে আগুন নেভায়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একজনকে আটক করে। সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রিয়াজুল ইসলাম জানিয়েছেন, বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। পরবর্তী পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে গ্রামে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। আটকের বিষয়ে তিনি বলেন, তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নেয়া হয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published.