মুজিবনগর আনন্দবাসে অস্ত্রধারী ডাকাতদলের হানা : অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ডাকাতি

 

মুজিবনগর প্রতিনিধি: মেহেরপুর মুজিবনগর উপজেলার আনন্দবাস গ্রামের তিনটি বাড়িতে ডাকাতি সংঘটিত হয়েছে। গতবুধবার দিনগত মধ্যরাতে ডাকাতরা হানা দিয়ে নগদ টাকা, সোনার গয়না ও মূল্যবান জিসিনপত্রসহ ৫ লক্ষাদিক টাকার মালামাল লুটে নেয়। প্রতিরোধের মুখে দুটি বোমা বিস্ফোরণ ঘটিয়ে পালিয়ে যায় ডাকাতদলের সদস্যরা।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মুজিবনগর উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আমিরুল ইসলামের আনন্দবাস গ্রামের বাড়িতে বুধবার মধ্যরাতে একদল অস্ত্রধারী ডাকাত হানা দেয়। প্রধান ফটক ভাঙার সময় বাড়ির লোকজন টের পেলে ডাকাতরা সটকে পড়ে। একই পাড়ার হাশেম বিশ্বাসের বাড়িতে হানা দেয় তারা। অস্ত্রের মুখে বাড়ির লোকজন জিম্মি করে সোনার গয়না, নগদ টাকাসহ দু লক্ষাদিক টাকার মালামাল লুটে নেয়। ওই বাড়িতে ডাকাতিশেষে হানা দেয় গরু ব্যবসায়ী তুষার হোসেনের বাড়িতেহানা দেয়। হাশেম বিশ্বাসের বাড়ির মতো একই কায়দায় দেড় লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুটে নিয়ে হানা দেয় মামুন হোসেনের বাড়িতে। নগদ টাকা, সোনার গয়নাসহ দেড় লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুটে নেয়। তিনটি বাড়িতে ডাকাতির ঘটনায় গ্রামের জানাজানি হয়। মামুনের বাড়ির পাশে ডাকাতদের প্রতিরোধ করেন গ্রামবাসী। পালানোর সময় দুটি বোমার বিস্ফোরণ ঘটায় ডাকাতদল। খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থলে পৌঁছায় মুজিবনগর থানা পুলিশ। ওসি মনিরুজ্জামান মোল্লা ডাকাতির বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, বিস্ফোরণের শব্দ হয়েছে কিন্তু কোনো আলামত পাওয়া যায়নি। পটকা বিস্ফোরণ ঘটেছে বলে দাবি করেন তিনি। এ ঘটনায় ভুক্তভোগীদের পক্ষ থেকে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

এদিকে ডাকাতির ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে। গ্রাম সূত্রে জানা গেছে, গত ২০-২৫ বছরের মধ্যে আনন্দবাস গ্রামে কোনো ডাকাতির ঘটনা ঘটেনি। তাই গ্রামবাসীর মধ্যে নতুন আতঙ্ক সৃষ্টির পাশাপাশি মিশ্র প্রতিক্রিয়া বিরাজ করছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *