মালিকির সহায়তায় ইরানের যুদ্ধবিমান

মাথাভাঙ্গা মনিটর: সুন্নি জঙ্গিদের সংগঠন আইএসআইএল’র অগ্রযাত্রা ঠেকাতে ইরাক সরকারকে যুদ্ধ বিমান দিয়েছে ইরাক। বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, এর আগে রাশিয়াও মালিকিসরকারের সহযোগিতায় যুদ্ধবিমান পাঠিয়েছিলো। তবে গত এক জুলাইয়ে সরবরাহ করাযুদ্ধ বিমানগুলো ইরানের পক্ষ থেকে গেছে বলে নিশ্চিত করেছে ইন্টারন্যাশনালইনস্টিটিউট ফর স্ট্যাটেজিক স্ট্যাডিজ (আইআইএসএস)।আল-কায়েদাসংশ্লিষ্ট সুন্নি জঙ্গিগোষ্ঠী আইএসআইএল এর দখলে এখন ইরাকের উত্তরাঞ্চল।দীর্ঘদিন সিরিয়ার রণাঙ্গনে যুদ্ধ করলেও স্বল্প সময়ের প্রচেষ্টায় ইরাকের বড়অংশের দখল নিয়েছে তারা।গত ১০ জুলাই সর্ব প্রথম উত্তরইরাকের মসুল প্রদেশের দখল বিদ্রোহীদের হাতে চলে যাওয়া খবর গণমাধ্যমে আসে।এর এক সপ্তাহের মধ্যেই গুরুত্বপূর্ণ তেলক্ষেত্র, গ্যাসের মজুদ ওসেনানিবাসের দখল নেয় আইএসআইএল।ইতোমধেই দখলকৃত এলাকায়স্বতন্ত্র একটি ‘ইসলামি খেলাফত’ ঘোষণা করেছে বিদ্রোহীরা। নতুন ‘রাষ্ট্রের’ জন্য মুসলিম বিশ্বের সহযোগিতাও চেয়েছে তারা।সুন্নি বিদ্রোহী হলেও আল কায়েদা সংশ্লিষ্ট জঙ্গিদের অগ্রযাত্রার বিরুদ্ধে অবস্থান মধ্যপ্রাচ্যের গুরুত্বপূর্ণ রাষ্ট্র সৌদি আরবের।ইরাকের প্রতিবেশী শিয়া রাষ্ট্র ইরানও শুরু থেকে বিদ্রোহীদেরকে দমানোর কথা বলে আসছে।ইরাকের সরকারকে টিকিয়ে রাখতে ইরানের জঙ্গি বিমান পাঠানোরঅর্থ হচ্ছে ওই দেশে বৈরী দেশ যুক্তরাষ্ট্রের বিমানগুলোর সঙ্গে এক হয়ে জঙ্গিদমনের অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে ইরানের বিমানগুলো।তবে ইরাকে বিদ্রোহীদের দমনে বৈরিতা ভুলে সম্প্রতি ইরান ও যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা আলোচনা করেন বলে গণমাধ্যমের খবর।  যুক্তরাষ্ট্রইরাকে ড্রোন ও গোয়েন্দা হেলিকপ্টার মোতায়েন করেছে। সামরিক যানগুলোওবিভিন্ন স্থানে জঙ্গিদের অগ্রযাত্রা পর্যবেক্ষণ করছে।

Leave a comment

Your email address will not be published.