মহেশপুরে বাহীনিরপ্রধান কবীর গ্রেফতার

 

মহেশপুরপ্রতিনিধি: উপজেলার সন্ত্রাসী কবীর বাহীনির প্রধান কবীরপুলিশের হাতে ধরা পড়েছে। গতপরশু মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মহেশপুর থানা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেছে। তার বিরুদ্ধে একাধিক চাঁদাবাজি ও লুটপাট মামলা রয়েছে।

এলাকবাসী ও থানাসূত্রে প্রকাশ, মীর্জাপুর মান্দারতলা গ্রামের কাওছার ফকিরের ছেলে কবীর হোসেন ও কাদবিলা গ্রামের মহাসিন মিলে একটি সন্ত্রাসী বাহিনী গঠন করে চাঁদাবাজি,সন্ত্রাসী, লুটপাটসহ এলাকায় রামরাজত্ব কায়েম করে আসছিলো। তার বিরুদ্ধে কেউ কথা বললে তার ওপর নেমে আসতো নির্যাতন। চৌগাছা থানায় তার বিরুদ্ধে ৩/৪টি মামলা রয়েছে। সম্প্রতি চৌগাছার কাদবিলা গ্রামে এক বাড়িতে মহিলাদের ওপর অত্যাচার,অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে লুটপাট ও বোমবাজিসহ সন্ত্রাসী ঘটনা ঘটায়। এবিষয়ে চৌগাছা থানায় ২৭ জুন মামলা হয়। চৌগাছা থানার বিশেষ বার্তায় মঙ্গলবার বিকেলে মহেশপুর শহর থেকে এএসআই গাফফার তাকে গ্রেফতার করেন। গ্রেফতারের পর থেকে তাকে ছাড়ানোর জন্য বড়ধরনের তদবির চলে। এক পর্যায়ে তাকে ছেড়ে দেয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয় ;কিন্তু বাঁধসাধেন গণমাধ্যম কর্মীরা। তারা নানা তৎপরতা চালালে তাকে ১৬জুন সকালে ঝিনাইদহ আদালতে চালান দেয়া হয়।

মহেশপুর থানার ওসি শাহাজান আলী বলেন, তার বিরুদ্ধে তেমন কোনো অভিযোগ না থাকায় তাকেছেড়ে দেয়ার প্রক্রিয়া চলছিলো। কিন্তু পরবর্তীতে তা আর হয়নি। চৌগাছা থানার ওসি আকরাম হোসেন জানান, তাদের তথ্যমতে তাকে গ্রেফতার করা হলেও দু বার তাকে থানা থেকে নিয়ে আনতে গেলেও মহেশপুর পুলিশ দেয়নি। ওসি আরো বলেন, কবীর শীর্ষ সন্ত্রাসী। সে ও মহাসিন মিলে একটি সন্ত্রাসী বাহিনী গড়ে তুলেছে। তাদের বিরুদ্ধে অত্র থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। এ বাহিনীর দমন করার জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published.