মহেশপুরে অস্ত্র ঠেকিয়ে অপহরণ : ৪০ হাজার টাকায় মুক্তি

 

মহেশপুর প্রতিনিধি: মহেশপুরে সংখ্যালঘু পরিবারের ৫ম শ্রেনির এক ছাত্রকে মাথায় অস্ত্র ঠেকিয়ে অপহরণের পর প্রায় ৪০ হাজার টাকা চাঁদা নিয়ে মুক্তি দিয়েছে অপহরণকারীরা।

পরিবার ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, গতকাল রোববার রাত আনুমানিক আড়ায়টার দিকে ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর উপজেলার মির্জাপুর গ্রামের দাষপাড়ার সাধনের ছেলে ৫ম শ্রেণি পড়ুয়া বিপুলকে (১৩) মুখোশধারী অপহরণকারী ঘুমন্ত অবস্থায় মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে ডেকে অপহরণ করে নিয়ে যায়।

এ সময় তার পিতাকে ডেকে মোবাইলফোনটি ছিনিয়ে নেয় এবং ২০ মিনিটের মধ্যে ১ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে না দিলে ছেলেকে আর জীবিত পাবিনা ও পুলিশ বা কাউকে জানালে বোমা মেরে তোদের পাড়া উড়িয়ে দেয়ার হুমকি দেয়।

পরে অপহৃত বিপুলের পিতার নিকট থেকে ছিনিয়ে নেয়া মোবাইল থেকে তার চাচার নম্বরে ফোন দিয়ে দাবিকৃত টাকা দেয়ার জন্য চাপ প্রয়োগ করে।

টাকা দিতে দেরি হওয়ায় অপহৃত বিপুলকে শারীরিক নির্যাতন করে। কোনো উপয় না পেয়ে অপহৃত বিপুলের পিতা ধার করে ৩৮ হাজার টাকা জোগাড় করে মির্জপুর-মান্দারবাড়ীয়া সড়কের বড়বিল নামক রাস্তার ওপর থেকে চাঁদার টাকা দিলে তার ছেলেকে ফেরত দেয়।

এ ব্যাপারে মহেশপুর থার অফিসার ইনচার্জ আহম্মেদ কবির জানান, এ বিষয়ে কোনো তথ্য আমাদের কাছে নেই তবে অভিযোগ পেলে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে। বর্তমানে সংখ্যালঘু এ পাড়াটি এখন অপহরনকারীদের আতঙ্কে আতঙ্কিত। কখন জানি অপহরনকারীরা এসে আবার কার সন্তান অপহরণ করে নিয়ে যেয়ে চাঁদা দাবি করে। এ রিপোট লেখা পর্যন্ত মামলার প্রস্তুতি চলছিলো।

 

Leave a comment

Your email address will not be published.