মহেশপুরের বাঘাডাঙ্গায় সীমান্তে বিএসএফ’র গুলিতে চুয়াডাঙ্গার গরু ব্যবসায়ী নিহত

 

স্টাফ রিপোর্টার/মহেশপুর প্রতিনিধি: ঝিনাইদহের মহেশপুরের বাঘাডাঙ্গা সীমান্তে গতকাল শুক্রবার ভোরে বিএসএফ’র গুলিতে জসিম উদ্দিন (২৬) নামে এক বাংলাদেশী গরু ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। তিনি চুয়াডাঙ্গা জেলার সলুয়াবলদিয়া গ্রামের দাউদ মণ্ডলের ছেলে। বাঘাডাঙ্গা গ্রামের মৃত ইব্রাহীম মণ্ডলের জামাতা। ভারতের নদিয়া জেলার হাসখালী থানার হাজরাখালী বিএসএফ ক্যাম্পের কাছে তাকে গুলি করে মারা হয়। ঝিনাইদহ- ৫৮ বিজিবি’র পরিচালক লে. কর্নেল তাজুল ইসলাম তাজ এ খবর নিশ্চিত করেছেন। অপরদিকে কুড়িগ্রামের সীমান্তেও বিএসএফ একজন বাংলাদেশীকে হত্যা করেছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

বিজিবিসূত্রে জানা গেছে, গতকাল শুক্রবার ভোর রাতে জসিমসহ কয়েকজন গরুব্যবসায়ী ঝিনাইদহের মহেশপুর বাঘাডাঙ্গা সীমান্ত হয়ে ভারতে ঢুকে গরু আনার চেষ্টা করে। এ সময় বিএসএফ তাদের ধাওয়া করে। বিজিবির ভাস্যমতে, গরুব্যবসায়ীরা পাল্টা আক্রমণ করে ভারতের হাজরাখালী বিএসএফ ক্যাম্পের দুই সদস্যকে রাম দা দিয়ে কুপিয়ে আহত করে। পরে বিএসএফ গুলি চালালে ঘটনাস্থলেই নিহত হন জসিম উদ্দিন। তার লাশ ভারতের হাসখালী থানায় রাখা হয়েছে।

স্থানীয় একটি সূত্র মতে নিহত ব্যক্তির সঙ্গীরা পালিয়ে বাংলাদেশ সীমান্তে ফিরে গ্রামবাসীকে ঘটনাটি জানায়। তবে যারা পালিয়ে প্রাণ রক্ষা করেছে তাদের নাম ঠিকানা জানা যায়নি। নিহত জসিম মহেশপুর উপজেলার বাঘাডাঙ্গা গ্রামের মৃত ইব্রাহীম মণ্ডলের জামাতা। তিনি প্রায়ই বাঘাডাঙ্গা গ্রামে রাতযাপন করতেন। এদিকে শুক্রবার সকালেই তার লাশ ফেরত চেয়ে বিএসএফ কতৃপক্ষকে চিঠি দিয়েছে বিজিবি। পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে লাশ আনার পক্রীয়া চলছে বলে ঝিনাইদহ ৫৮ বিজিবি’র পরিচালক তাজুল ইসলাম জানান।

বিজিবি সূত্র জানায়, লাশ ফেরত চেয়ে শুক্রবার দুপুরে বিএসএফের কাছে চিঠি দেয়া হলেও বিএসএফের তরফ থেকে এখনো কোনো সাড়া পাওয়া যায়নি।

অপরদিকে কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি জানান, জেলার রৌমারি উপজেলা সীমান্তে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফের গুলিতে লাল মিয়া ওরফে দুদু (২৫) নামে এক বাংলাদেশী নিহত হয়েছেন। শুক্রবার ভোররাত ৪টার দিকে উপজেলার গয়তারপাড় সীমান্তে এ ঘটনা ঘটে। নিহত গরুব্যবসায়ী উপজেলার সোলমারি ইউনিয়নের ফকিরপাড়া গ্রামের আব্দুল হাইয়ের ছেলে।

নিহতের পরিবারসূত্রে জানা গেছে, লাল মিয়া নিজ বাড়ি থেকে এক কিলোমিটার দূরে সীমান্তের আন্তর্জাতিক ১০৬১ নং পিলারের কাছে বাংলাদেশ অংশে অবস্থান করছিলেন। এ সময় বিএসএফের ঝাউডাঙ্গা ক্যাম্পের জওয়ানরা তাকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। এতে লাল মিয়া গুরুতর আহত হন। আর্তচিৎকার শুনে পরিবারের সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়ার প্রস্তুতির সময়ই মৃত্যু হয়।

মোল্লারচর বিজিবি ক্যাম্পের কমান্ডার আব্দুল আজিজ জানান, খবর পেয়ে বিজিবি ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে। জামালপুর থেকে কমান্ডিং অফিসার লে. কর্নেল রফিকুল হাসান এলে লাশের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। এদিকে খাটিয়ামারি সীমান্তের ১০৬৩ নং পিলারের কাছ থেকে আকিবুল ইসলাম (৩৫) নামে আরেক গরুব্যবসায়ীকে আটক করেছে বিজিবি। তিনি অবৈধভাবে সীমান্ত দিয়ে ভারতে প্রবেশের চেষ্টা করছিলেন বলে জানা গেছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *