ভুলটিয়ার সবুজকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না : অপহরণ?

 

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা জেলা সদরের ভুলটিয়ার আবুল কলাম আজাদ ওরফে সবুজ আহম্মেদকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। তিনি ভুলটিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরি কাম নৈশপ্রহরী। সবুজ এলাকায় পল্লি চিকিৎসক হিসেবেও পরিচিত।

গ্রামের একাধিক সূত্র বলেছে, চুয়াডাঙ্গার সদর উপজেলার ভুলটিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরি কাম নৈশপ্রহরী আবুল কালাম আজাদ ওরফে সবুজকে (৩০) গত শনিবার মধ্যরাত থেকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছেনা। পরিবারের আশঙ্কা সবুজকে অপহরণ করা হয়েছে। তবেপুলিশের ধারণা পাওনাদারের ভয়ে ঋণগ্রস্ত সবুজ আত্মগোপন করেছেন। সবুজ ভুলটিয়া স্কুলপাড়ার ইউনুস মোল্লার ছেলে।

এদিকে সহকারী পুলিশ সুপার মো. কামরুজ্জামানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ গতকাল রোববার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যায়।পুলিশ কর্মকর্তারা সবুজের পরিবার, প্রতিবেশী ও পাওনাদারদের সাথে কথা বলেন।সবুজের মা বুলবুলি বেগম জানান, গতশনিবার বিকেল ৫টার দিকে সবুজ তার বন্ধু একই গ্রামের হেলাল হোসেনের বাড়ি থেকে বের হয়ে দশমাইল বাজারে যায়। বাজার থেকে সন্ধ্যায় বাড়ি ফিরে আসে এবং বাড়ি থেকে মোটরসাইকেলের কাগজ নিয়ে আবারো বের হয়। তারপর আর কোনো খোঁজ মেলেনি। তবে এর আগেশুক্রবার রাত ১২টার দিকে অজ্ঞাত পরিচয়ের লোকজন সবুজকে মোবাইলফোনে জানায় ভালোমন্দ খেয়ে নে, তোর অসুবিধা আছে। ভুলটিয়া সরকারি প্রাথামিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আহমেদ আলী জানান, গত দেড়বছর ধরে সবুজ এ বিদ্যালয়ে কাজ করছে। জরুরি কাজের কথা বলে শনিবার বিকেলে সবুজ চলে যায়।চুয়াডাঙ্গা সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) বলেন, পাওনা টাকা নিয়ে বিরোধের জের ধরে সবুজকে অপহরণ করা হয়েছে অথবা তিনি নিজেও আত্মগোপন করে থাকতে পারেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *