ভালাইপুরের রবিউলকে মাইক্রোবাসে তুলে নিয়েছে একদল শাদা পোশাকধারী

ভালাইপুর প্রতিনিধি: চুয়াডাঙ্গার ভালাইপুর মোড় থেকে ভালাইপুর গ্রামের রবিউল ইসলামকে গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে শাদা মাইক্রোবাসে তুলে নেয়া হয়েছে। তাকে শাদা পোশাকে পুলিশ নাকি অন্য কেউ তুলে নিয়েছে তা অবশ্য নিশ্চিত করা সম্ভব হয়নি। তবে চুয়াডাঙ্গা জেলা গোয়েন্দা পুলিশ রবিউলকে আটকের বিষয়টি অস্বীকার করেছে। বলেছে, আমাদের কোনো সদস্য রবিউল নামের কাউকে ধরেনি।
চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার চিৎলা ইউনিয়নের ভালাইপুর গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে রবিউল ইসলামের পরিবারের সদস্যরা বলেছে, গতকাল মঙ্গলবার সকালে নিজেদের পানবরজে কাজ করে সকাল ১০টার দিকে সোয়েটার কেনার কথা বলে ভালাইপুর মোড়ে যায়। সেখানে কলাবাড়ি গ্রামের দুবাই প্রবাসী ভালাইপুর মোড়ের মামুন মণ্ডলের সাথে দেখা করার জন্য অপেক্ষা করতে থাকে। ৪ তলার নিচে অবস্থান করাকালে শাদা রঙের একটি মাইক্রোবাস থেকে ৪-৫ জন নেমে কোনো কথা না বলে পেছনে হাত ও চোখ বেঁধে মাক্রোবাসে উঠিয়ে নেয়। এ সময় স্থানীয়দের অনেকেই বলতে থাকেন, রবিউলকে ডিবি পুলিশ ধরে নিয়ে গেলো।
এ বিষয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর থানা, আলমডাঙ্গা থানা, দামুড়হুদা থানাসহ চুযাডাঙ্গা ডিবি অফিসে একাধিক বার যোগাযোগ করা হলেও পুলিশ জানায়, ভালাইপুর এলাকা থেকে আমরা কাউকে গ্রেফতার বা আটক করিনি। ৪ তলার গার্ড ভালাইপুর গ্রামের ওমর আলীর ছেলে মজিবুল ইসলাম জানান, শাদা মাইক্রোবাসটি থেমেই ৪-৫ জন গাড়ি থেকে নেমে রবিউল ইসলামের সাথে ২/১ মিনিট কথা বলার পর পরই হাতে হাতকড়া পরিয়ে ও চোখ বেঁধে গাড়িতে উঠিয়ে ফেলে এবং কিছু বুঝে ওঠার আগেই গাড়িটি চলে যায়।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *