বোল পাল্টালেন পঙ্কজ শরণ

 

স্টাফ রিপোর্টার: এবারবোল পাল্টালেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার পঙ্কজ শরণ। গত ৭এপ্রিলে ক্ষমতার পালাবদলেও বাংলাদেশ নিয়ে ভারতের অবস্থান বদলাবে না বলেমন্তব্য করলেও গতকাল বুধবার এ অবস্থান থেকে সরে দাঁড়ালেন তিনি।গত ৭এপ্রিল সোমবার বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল অ্যান্ডস্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজ (বিআইআইএসএস-বিস) আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে পঙ্কজ শরণবলেছিলেন, ভারতে নির্বাচনের পর ক্ষমতায় রাজনৈতিক দল বদল হলেও বাংলাদেশেরসাথে সম্পর্কের কোনো পরিবর্তন হবে না। যতোদিন পর্যন্ত এ দু দেশেরসম্পর্কের মূল ভিত্তি শক্ত থাকবে, একে অন্যের প্রতি আগ্রহ অপরিবর্তিতথাকবে, দায়িত্ব ও কর্তব্য সম্পর্কে ধারণা থাকবে, দুপক্ষের রাজনৈতিকসদিচ্ছা থাকবে, আমি মনে করি বাংলাদেশের প্রতি ভারতের পররাষ্ট্রনীতিও ততোদিনঅক্ষুন্ন থাকবে। ক্ষমতার পালাবদলেও বাংলাদেশ নিয়ে ভারতের অবস্থান বদলাবেনা।

পঙ্কজ শরণ বলেছিলেন, পারস্পরিক স্বার্থ কীভাবে সুরক্ষা হয়, তার ওপরই দু প্রতিবেশীর সম্পর্ক অনেকটা নির্ভর করে। আর সম্পর্কের ক্ষেত্রেআগ্রহের বিষয়টি সরকার পরিবর্তনের সাথে সাথে রাতারাতি বদলে যায় না। আমরাএকে অন্যকে হয়তো জানি; কিন্তু কতোটা বুঝতে পারি?এ প্রশ্নটা আমাদের নিজেদেরপ্রতিদিন করা উচিত।

হাইকমিশনার আরো বলেছিলেন, সাম্প্রতিক বছরগুলোতেদ্বি-পক্ষীয় সম্পর্কের উল্লেখযোগ্য অগ্রগতির পরও তিস্তার পানি বণ্টন চুক্তিসই না হওয়া ও সীমান্ত চুক্তির বাস্তবায়ন না হওয়া দুর্ভাগ্যজনক। কংগ্রেসেরশাসনামলে অব্যাহত চেষ্টার পরও বিষয়গুলোর সমাধান হয়নি। নির্বাচনের পরক্ষমতার পালাবদল হলেও এ বিষয়ে যে অগ্রগতি হয়েছে, তা যেন বাধাগ্রস্ত না হয়সে বিষয়ে ভারত সজাগ রয়েছে।

এদিকেমাত্র এক মাসের ব্যবধানে গতকালবুধবার দুপুরে পরিকল্পনামন্ত্রী আ.হ.ম মুস্তফা কামালের সাথে পরিকল্পনামন্ত্রণালয়ের এক বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ভারতীয় এ হাইকমিশনারবলেন, দিল্লির সাথে ঢাকার কূটনৈতিক ও অর্থনৈতিক সম্পর্ক ভবিষ্যতে কেমন হবেতা ভারতের লোকসভা নির্বাচনের ফলাফলের ওপর নির্ভর করছে।

তিনি মনেকরেন, নির্বাচনে সরকার পরিবর্তিত হলে দেশটির পররাষ্ট্রনীতিতেও কিছু পরিবর্তনআসবে। আর তার প্রভাব পড়বে প্রতিবেশী রাষ্ট্রগুলোর সাথে সম্পর্কের ওপর। এইধারাবাহিকতায় বাংলাদেশের সাথে দেশটির অব্যাহত সম্পর্কের ধরনও পাল্টে যেতেপারে বলে ইঙ্গিত দেন তিনি।

ভারতের সাম্প্রতিক জাতীয় নির্বাচনে যদিমোদি সরকার আসে তাহলে এ সম্পর্ক কেমন থাকবে সে প্রশ্নের উত্তরে ভারতীয়হাইকমিশনার উপস্থিত সবাইকে আর কয়েক দিন অপেক্ষা করতে বলেন।তিনিবলেন, মে মাসের ১৬-১৭ তারিখে নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশ করা হবে। এতে যদিমোদি সরকার ক্ষমতায় আসে তাহলে আমাদের এই কয়েক দিন ধৈর্য ধরতে হবে। দেখতেহবে মোদি সরকার কি ধরনের বৈদেশিক নীতি গ্রহণ করে।

তিনি আরও বলেন, ভারত বাংলাদেশের সাথে তার সম্পর্ককে সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়ে থাকে। দুদেশেরঅর্থনীতির সমৃদ্ধিতে এ সম্পর্ক অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আমি বিশ্বাস করিভারত-বাংলাদেশ সম্পর্ক অর্থনৈতিক, বাণিজ্যিক ও বিনিয়োগের দিক থেকেউত্তরোত্তর সমৃদ্ধশালী হবে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *