বোরকা পরা মহিলাকে চড় থাপ্পড় : রক্ষা পেলো সোনার চেন?

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের বর্হিবিভাগে মহিলা ছিনতাইকারী!

 

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের বর্হিবিভাগে সত্যিই মহিলা ছিনতাইকারী? নাকি কয়েক মহিলার চুলোচুলির পর গলায় থাকা সোনার চেন ছেড়ার পর তা ছিনতাইয়ের অপচেষ্টার অভিযোগ? এ নিয়ে সৃষ্ট ধন্ধের জট খোলেনি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে বললেন, মঙ্গলবার। তখন ঘড়ির কাঁটা ১০টা ছুঁই ছুঁই। হাসপাতালের বর্হিবিভাগে কেউ কাটছে টিকেট, কেউ নিচ্ছে ওষুধ। কয়েকটি চেম্বারের সামনে রোগীর লম্বা লাইন। এরই মাঝে কয়েক মহিলার মধ্যে শুরু হয় ধস্তাধস্তি। চুলোচুলি। বোরকা পরা এক মহিলাকে ধরে চড় থাপ্পড় তো মারা হচ্ছেই তাকে আটকানোরও চেষ্টা করছেন আর এক মহিলা। কী হলো কী হলো? বলে কেউ কেউ চিৎকার দিয়ে ছুটে গেলেন সেখানে। ততোক্ষণে এক মহিলা হাতে ছেড়া সোনার চেন দেখিয়ে বলছে, আমার গলা থেকে চেনটি ছিড়ে নিয়ে সটকাতে চেয়েছিলো ওই বোরকা পরা মহিলা ছিনতাইকারী। অবশ্য এক শিশু কোলে নিয়ে বোরকা পরা মহিলাকে বেশ কয়েক মহিলা সাথে নিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে সরে গেলো।

যে মহিলার গলায় থাকা সোনার চেন ছিনতাইয়ের চেষ্টা চলছিলো বলে দাবি করা হয়েছে, তিনি পরিচয় দিতে গিয়ে বলেছেন, তার বাড়ি দক্ষিণ হাসপাতালপাড়ায়। নাম জাহিদা খাতুন। তিনি তার এক নিকটজনকে ডাক্তার দেখানোর জন্য হাসপাতালের বর্হিবিভাগে গিয়ে পরিস্থিতির শিকার হন বলে জানিয়েছেন তার পাশে থাকা কয়েকজন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *