বিচ্ছিন্ন সহিংসতার মধ্যদিয়ে সারাদেশে হরতাল পালিত

স্টাফ রিপোর্টার: বিচ্ছিন্ন সহিংসতার মধ্যদিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার হরতাল পালিত হয়েছে। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা সাবেক পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী রিয়াজ রহমানের ওপর হামলা ও গুলির প্রতিবাদে দেশব্যাপি ২০ দলীয় জোট এ হরতালের ডাক দেয়। তবে সড়ক, রেল ও নৌপথে অবরোধ অব্যাহত রয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার ছিলো অবরোধের দশম দিন।

বরিশাল, চট্টগ্রাম, খুলনা, রংপুর ও চাঁপাইনবাবগঞ্জসহ বিভিন্ন স্থানে বিএনপি-জামায়াতের আড়াই শতাধিক নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সংঘর্ষে আহত হয়েছে অর্ধশতাধিক। গাজীপুরের কালিয়াকৈরে গতকাল বৃহস্পতিবার ভোরে গাড়ির হেলপারকে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়েছে। রাজধানীর মগবাজার আগোরার সামনে অগ্নিদগ্ধ প্রাইভেটকারচালক আবুল কালাম বার্ন ইউনিটে ৬ দিন ধরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল বৃহস্পতিবার মারা গেছেন। ৯ জানুয়ারি তিনি অগ্নিদগ্ধ হন। হবিগঞ্জে এসপির বাসভবন লক্ষ্য করে দুটি ককটেল বিস্ফোরণে ২ মোটরসাইকেল আরোহী আহত হয়েছেন। যশোরে পুলিশের বিরুদ্ধে এক শিবির কর্মীর পা ভেঙে দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। হরতালে দূরপাল্লার যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকলেও ট্রেন চলাচল করেছে। তবে ট্রেনের লণ্ডভণ্ড সিডিউলে যাত্রীদের দুর্ভোগ ছিল চরমে। বিভাগীয় শহরসহ বিভিন্ন স্থানে হরতাল চলাকালে রিকশা-ভ্যানসহ হালকা যানবাহন চলাচল করে। দোকানপাট বন্ধ ছিলো। ব্যাংক-বীমার প্রধান ফটকে তালা ঝুলতে দেখা যায়। অফিস-আদালতে উপস্থিতি ছিলো কম। অধিকাংশ স্কুল-কলেজ ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ছিলো। ২০ দলীয় জোটের নেতাকর্মীরা বাস, ট্রাক, পিকআপ ও অটোরিকশা ভাঙচুর এবং অগ্নিসংযোগ করে।

বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের ডাকা সকাল-সন্ধ্যা হরতাল চুয়াডাঙ্গা শান্তিপূর্ণভাবে পালিত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার হরতালে মহাসড়কে দূরপাল্লার কোনো ভারী যানবাহন চলাচল করতে দেখা যায়নি। আন্তঃজেলা রটেও কোনো লোকাল বাস চলাচল করেনি। শহরে দোকান-পাট আংশিক খোলা থাকলেও বেচাকেনা ছিলো তুলানামূলক কম। অফিস-আদালত খোলা থাকলেও কার্যক্রম ছিলো ধীর গতি। ট্রেন চলাচল ও দর্শনা চিনিকলের উৎপাদন ছিলো স্বাভাবিক। শহরের বিভিন্ন রাস্তার মোড়ে মোড়ে পুলিশের উপস্থিতি ছিলো চোখে পড়ার মতো।

ঝিনাইদহ অফিস জানিয়েছে, ২০ দলীয় জোটের ডাকা হরতালের সর্মথনে বিক্ষোভ মিছিল করেছে ঝিনাইদহ জেলা যুবদল। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে জেলা শহরের ওয়াজের আলী হাইস্কুলের সামনে থেকে জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. এমএ মজিদের নেতৃত্বে শুরু হয়। বিক্ষোভ মিছিলে আরো অংশগ্রহণ করেন জেলা যুবদলের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক আহসান হাবিব রনক, আবুল বাশার বাসী, ছাত্রদল নেতা মেহেদী হাসান ও শাহেদ।

অপরদিকে ঝিনাইদহে হরতালবিরোধী মিছিল ও সমাবেশ করেছে জেলা আওয়ামী লীগ। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে জেলা শহরের পায়রা চত্বর থেকে হরতাল বিরোধী মিছিল জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজিজুর রহমানের নেতৃত্বে বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে পুনরায় একই স্থানে শেষ হয়। পরে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক অ্যাড. আব্দুর রশিদ, সাংগঠনিক সম্পাদক আক্কাস আলী, জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক আশফাক মাহমুদ জন, জেলা কৃষকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রাজিব হাসান রাজু, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শাকিল আহামেদ, সদর উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক নুর-এ-আলম বিপ্লব প্রমুখ। সমাবেশে আওয়ামী লীগ নেতারা বলেন, ২০ দলীয় জোটের অবৈধ হরতাল জনগণ প্রত্যাখ্যান করেছে। আগামী দিনে বিএনপি-জামায়াতের নৈরাজ্য মেনে নেয়া হবে না।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *