বিএনপি নেতাদের বাড়ি বাড়ি তল্লাশি : চলছে গ্রেফতার অভিযান

বেগম খালেদা জিয়ার রায়কে ঘিরে ঢাকাসহ সারাদেশে চলছে ব্যাপক ধরপাকড়

স্টাফ রিপোর্টার: ৮ ফেব্রুয়ারি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার রায়কে ঘিরে ঢাকাসহ সারাদেশে চলছে ব্যাপক ধরপাকড়। রাজনীতিতে বিরাজ করছে উত্তেজনা। রায়ের দিনে বড় জমায়েত করার প্রস্তুতি নিচ্ছে বিএনপি। বেগম খালেদা জিয়ার সংবাদ সম্মেলন আজ। অবশ্য এরই মধ্যে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) রাজধানীতে ওইদিন জমায়েত কিংবা মিছিল নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে। তবুও রায়ের দিন বিএনপি নেতা-কর্মীরা মাঠে থাকবে বলে দলীয় সূত্র জানিয়েছে। টানটান উত্তেজনার এই মুহূর্তে গত কয়েকদিন ধরেই চলছে গণগ্রেফতার। বিএনপি জোট নেতাদের বাড়ি বাড়ি পুলিশ তল্লাশি চালাচ্ছে। গাজীপুরের টঙ্গী এলাকা থেকে গতকাল সাবেক এমপি হাসান উদ্দিন সরকারকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। টঙ্গী থানার ওসি ফিরোজ তালুকদার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। গতকাল সকাল থেকে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ শাখার সভাপতি হাবিব-উন নবী খান সোহেলের খোঁজ মিলছে না। এ নিয়ে দল ও তার পরিবার উদ্বিগ্ন।

হাবিব-উন নবী খান সোহেলের ‘হদিস পাওয়া যাচ্ছে না’ অভিযোগ করে অবিলম্বে তার সন্ধান চেয়ে গতকাল সংবাদ সম্মেলন করেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্মমহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, ‘ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সভাপতি সোহেলের  কোনো খোঁজ তারা সকাল থেকে পাচ্ছেন না। তিনি কোথায় আছেন আমরা এখন পর্যন্ত জানতে পারিনি। কেউ বলছেন গ্রেফতার হয়েছেন। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও গোয়েন্দা পুলিশ তাদের দিক থেকে এখন পর্যন্ত কিছু জানাচ্ছে না কেন? এটা আতঙ্কের ও উদ্বেগের।’

গত ৩০ জানুয়ারি হাইকোর্ট মোড়ে পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় বিএনপি নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে দায়ের করা তিনটি মামলারই আসামি হাবিব-উন নবী খান সোহেল। সোমবার বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া সিলেট সফরে সোহেলও তার সঙ্গে ছিলেন। ওই মামলার আসামি রিজভী আহমেদও। সিলেটে দুই আউলিয়ার মাজার জিয়ারত শেষে গত সোমবার রাত ৪টার দিকে ঢাকায় ফেরেন খালেদা জিয়া। আর ভোরের দিকে গোয়েন্দা পুলিশ মালিবাগের একটি বাসা থেকে সোহেলকে আটক করে নিয়ে যায় বলে সকালে সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করেন রিজভী। নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে রিজভী আহমেদ অভিযোগ করেন, গত ২৮ জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত বিএনপির ১১০০ নেতা-কর্মীকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। সোহেলের মতো একজন গুরুত্বপূর্ণ নেতা কী অবস্থায় আছেন, আমরা জানতে চাই। তার পরিবারের সঙ্গে  যোগাযোগ করেছি, তারাও সংশয়ের মধ্যে, তার বন্ধু-বান্ধবরা সংশয়ের মধ্যে। আমরা জানতে চাই।’ তবে বাবাকে নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে সোহেলের মেয়ে জান্নাতুল ইলমি সূচনা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে লেখেন, ‘সকাল  থেকে প্রত্যেকটা নিউজ চ্যানেলে বাবা এরেস্টের মিথ্যা খবর দেখে  দেখে যখন দুই চোখ, মন ক্লান্ত, পরিশ্রান্ত… ঠিক কিছু পরেই আবার পুলিশি তল্লাশি। মা তখন অফিসে, বাসায় আমরা কেবল তিনজন মেয়ে। ইন্টারকমে বাসায় কেউ নেই বলা সত্ত্বেও তারা জোরপূর্বক বাসায় আসে। বাবার নম্বর জানতে চায় আমার কাছে। আমি বলি আমার কাছে সত্যিই বাবার কোনো নম্বর নেই, আর বাবা ফোন ব্যবহার করেন না। এ পর্যন্ত ঠিক ছিলো। এরপরই বারবার নম্বর চেয়ে না পাওয়ায় তারা আমাকে হুমকি দেয় যে খারাপ ব্যবহার কাকে বলে তারা  দেখাতে জানে। সঙ্গে আমাকে পাগলসহ আরও নানা কথা শোনায়, চিৎকার করে। এই অধিকার তারা  কোথা থেকে পায়? সেই সঙ্গে এটাও বলে যে, প্রতিদিন দুই বেলা তারা এরূপ হয়রানি করবে আমাদের। প্রকৃতির বিচার বলে একটা কথা আমি বিশ্বাস করি।’

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সংবাদ সম্মেলন আজ। গুলশানে বিকেল ৫টায় এ সংবাদ সম্মেলন করবেন বলে জানিয়েছেন দলের সিনিয়র যুগ্মমহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী। সংবাদ সম্মেলনে তার বিরুদ্ধে যে মামলা হয়েছে এর আদ্যোপান্ত তুলে ধরবেন বিএনপি-প্রধান। এদিকে গতকাল রাতে শেষ মুহূর্তে দলের স্থায়ী কমিটির সঙ্গে বসবেন তিনি। সেখানে তিনি জেলে গেলে দল কীভাবে পরিচালনা হবে, বিএনপির পরবর্তী কর্মসূচি কী হবে তা নিয়েও বিস্তারিত আলোচনা হবে। এর আগে সন্ধ্যায় চীনা কমিউনিস্ট পার্টির একটি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে গুলশান কার্যালয়ে বৈঠক করবেন বেগম জিয়া।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *