বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের সকাল-সন্ধ্যা হরতাল আজ

চুয়াডাঙ্গা জেলা শহরে পৃথক তিনটি স্থানে ঝটিকা মিছিলে পুলিশি বাধা : গ্রেফতার ৩

 

স্টাফ রিপোর্টার: বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের পর কঠোর কর্মসূচি নিয়ে এই প্রথম রাজপথে নামছে। ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের দাবিতে আজ সারাদেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল আহ্বান করেছে তারা। হরতাল পালনের আহ্বান জানিয়ে গতকাল চুয়াডাঙ্গায় পৃথক তিনটি স্থান থেকে ঝটিকা মিছিল বের করলে পুলিশ আক্রমণাত্মক হয়ে ওঠে। সাংবাদিক সমিতির অফিসের সামনে থেকে মিছিল বের হতে গেলে পুলিশি বাধার মুখে ভণ্ড হয়ে গেলে সেখানেই সমাবেশ বক্তব্য রাখেন নেতৃবৃন্দ। কোর্টমোড় থেকে কেদারগঞ্জমুখি মিছিল থেকে তিনজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পোস্টঅফিসের সামনে থেকে মিছিল বের হলে শহীদ হাসান চত্বরে পুলিশি ধাওয়ার মুখে ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। এর পরপরই জেলা শহরের কয়েকটি পয়েন্টে পুলিশি টহল জোরদার করা হয়। আজকের হরতালে অপ্রীতিকর ঘটনা ঠেকাতে শহরে বাড়তি পুলিশ মোতায়েনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।

জানা গেছে, সরকারের সাথে জামায়াতের আঁতাতের যে গুঞ্জন উঠেছে, আজকের হরতালে সে বিষয়ও কিছুটা স্পষ্ট হবে। হরতালে জামায়াত-শিবিরের উপস্থিতির দিকে বিএনপিসহ অনেকেরই নজর থাকবে। হরতালের পক্ষে গতকাল রোববার সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা একাডেমী-সংলগ্ন সড়কে মশাল মিছিল করে ছাত্রদল। তবে পুলিশের লাঠিপেটা ও টিয়ারশেলে ছত্রভঙ্গ হয়ে যায় তা। একই ঘটনা ঘটেছে চট্টগ্রামের মিরসরাই ও ময়মনসিংহসহ কয়েকটি স্থানে। এছাড়া বেশ কয়েকটি জেলা ও উপজেলা শহরে হরতালের সমর্থনে মিছিল বের করা হয়। নাশকতার আশঙ্কায় বগুড়ায় গ্রেফতার করা হয়েছে বিএনপির দু নেতাকে।

হরতালের সমর্থনে ২০ দলীয় জোট চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশের আয়োজন করে। বিক্ষোভ মিছিলটি চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপির আহ্বায়ক মুহা. অহিদুল ইসলাম বিশ্বাসের নেতৃত্বে সাহিত্য পরিষদ প্রাঙ্গণ থেকে বিক্ষোভ মিছিলটি বের হওয়ার চেষ্টা করলে পুলিশি বাধার মুখে পড়ে। পরে সেখানে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের আয়োজন করে। সমাবেশে মুহা. অহিদুল ইসলাম বিশ্বাস তার বক্তব্যে বলেন, ষোড়শ সংশোধনীর মধ্যদিয়ে বিচার বিভাগকে বর্তমান সরকার আজ্ঞাবহ প্রতিষ্ঠানে রূপান্তরিত করে ক্ষমতায় আকড়ে থাকতে চায়। সোমবার সকাল-সন্ধা হরতাল সফল করার মধ্যদিয়ে এ ষোড়শ সংশোধনীর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানানোর জন্য জেলাবাসীকে আহ্বান জানান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির যুগ্মসম্পাদক খন্দকার আব্দুল জব্বার সোনা, মজিবুল হক মালিক মজু, সদর উপোজেলা বিএনপির সভাপতি অ্যাড. শাহজাহান মুকুল, জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য এম জেনারেল, রউফুন নাহার রীনা, মির্জা ফরিদুল ইসলাম শিপলু, হাজি রবিউল ইসলাম বাবলু, আবু আলা সামসুজ্জামান, আবু বকর সিদ্দিক, জাহানারা পারভীন, স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা হাজি আব্দুল মান্নান, জেলা আইনজীবী সমিতির যুগ্ম সম্পাদক অ্যাড. হেদায়েত হোসেন আসলাম প্রমুখ। পৌর বিএনপি সভাপতি আওরঙ্গজেব বেল্টু, সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম মঙ্গল। সদর উপজেলা বিএনপি সাধারণ সম্পাদক হাজি আব্দুল খালেক প্রমুখ।

এদিকে, সন্ধ্যায় চুয়াডাঙ্গা জীবননগর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় হরতালের সমর্থনে একটি মিছিল বের হয়। মিছিলটি পুলিশের ধাওয়ায় পণ্ড হয়ে যায়। এ সময় বিএনপির তিনকর্মীকে আটক করে পুলিশ। আটককৃতরা হলেন- সদর উপজেলার সুমিরদিয়া গ্রামের আব্দুল মাজেদের ছেলে বিএনপিকর্মী আব্দুল ওহাব, শহরের কেদারগঞ্জ পাড়ার ইয়ার আলীর ছেলে শিমুল ও একই পাড়ার মৃত মনসুর আলীর ছেলে হারুন অর রশিদ।

অপরদিকে সন্ধ্যায় ৭টার দিকে চুয়াডাঙ্গা পোস্টঅফিসের সামনে থেকে হরতালের সমর্থনে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি শহীদ হাসান চত্বরে পৌঁছুলে পুলিশ ধাওয়া করলে ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *