বাড়তি চাঁদার গেজেট প্রত্যাহার করা না হলে কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে

বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীদের সরকারি অংশের বেতন কর্তনের গেজেট প্রকাশের প্রতিবাদে চুয়াডাঙ্গায় শিক্ষক নেতৃবৃন্দ

স্টাফ রিপোর্টার: বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীদের সরকারি অংশের বেতন থেকে প্রতিমাসে ১০ ভাগ কর্তন করার গেজেট প্রকাশের প্রতিবাদে কর্মসূচি ঘোষণা করেছে জাতীয় শিক্ষক-কর্মচারী ফ্রন্ট, চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ। গতকাল মঙ্গলবার (১৮ জুলাই) বিকেলে জাতীয় শিক্ষক-কর্মচারী ফ্রন্ট, চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এই কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।
মূল বেতন থেকে ১০ ভাগ কেটে নেয়ার বিষয়টি শিক্ষক সমাজ কখনও মেনে নেবে না উল্লেখ করে কর্মসূচি ঘোষণা করেছেন নেতৃবৃন্দ। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে ২০ জুলাই বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় চুয়াডাঙ্গা শহরের শহীদ হাসান চত্বরে মানববন্ধন, ২৩ জুলা রোববার বেলা ১১টায় উপজেলা সদরে দাবির সপক্ষে বিক্ষোভ মিছিল এবং ৩০ জুলা রোববার বেলা ১১টায় চুয়াডাঙ্গা জেলা শহরের শিল্পকলা একাডেমি চত্বরে সমাবেশ ও জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে শিক্ষামন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি পেশ। এরপর দাবি আদায় না হলে আগামী মাসে আরও কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি দেয়া হয় সংগঠনের পক্ষ থেকে।
জানা যায়, গত জুন মাসে বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীর জুলাই মাসের বেতন থেকে অবসর ও কল্যাণ ট্রাস্টের চাঁদা বাবদ মাসিক মোট ৬ শতাংশের পরিবর্তে ১০ শতাংশ টাকা কর্তনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। আর সরকারের এমন সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে বেশ কিছুদিন ধরে নানা কর্মসূচি দিয়ে আসছে শিক্ষক সমাজের বিভিন্ন সংগঠন।
তাদের দাবি সরকার তাদের শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয়করণসহ ৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধি, বৈশাখী ভাতা, পূর্ণাঙ্গ বোনাস বা উৎসব ভাতা, পূর্ণাঙ্গ চিকিৎসা ও বাড়ি ভাড়া, শর্ত পূরণকারী নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারীদের এমপিও প্রদানের আশ্বাস দিয়ে এখনো তা বাস্তবায়ন করছেন না। সেখানে তাদের কাছ থেকে উল্টো আরও ৪ শতাংশ বেশি টাকা কর্তনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এটা নি¤œ-মধ্যবিত্ত বেসরকারি শিক্ষকদের ওপর এক কথায় অবিচার ছাড়া অন্যকিছু নয়।
সংবাদ সম্মেলনে জাতীয় শিক্ষক-কর্মচারী ফ্রন্ট, চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সমন্বয়কারী অধ্যাপক লুৎফর রহমান, বাংলাদেশ কলেজ শিক্ষক সমিতি (বাকশিস), চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক আজিজুল হক, বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি (বাশিস) চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সবাপতি আবুল কাসেম ও সাধারণ সম্পাদক ফোরকান আলীসহ সংগঠনসমূহের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *