বাল্যবিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেলো স্কুলছাত্রী কাজলী

 

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: বাল্যবিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেলো কাজলী খাতুন (১২) নামের ৬ষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রী। গতকাল সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তার বিয়ে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসনের ফেসবুক পেজে বাল্যবিয়ের তথ্য পাওয়ার সাথে সাথেই কর্তৃপক্ষের নির্দেশে কাজলীর বাল্যবিয়ে বন্ধে পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়। কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক সৈয়দ বেলাল হোসেনের নির্দেশে কাজলীর বাড়িতে গিয়ে বাল্যবিয়ে বন্ধ করেছে মিরপুর উপজেলা প্রশাসন। কাজলী খাতুন মিরপুর উপজেলার সদরপুর ইউনিয়নের বড়বাড়িয়া গ্রামের কালামের মেয়ে। জানা যায়, কাজলীরা তিন বোন। তার বড় দুই বোনের বিয়ে হয়ে গেছে বছর দশেক আগে। গতকাল সোমবার বিয়ের দিন নির্ধারণ করা হয়েছিলো কাজলীর।

এ ব্যাপারে মিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহাবুবুর রহমান জানান, কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসনের ফেসবুক পেজে কাজলী খাতুন (১২) নামের এক বাল্যবিয়ের কথা উল্লেখ করে পোস্ট করে এলাকার সাধারণ জনগণ। পরে জেলা প্রশাসক সৈয়দ বেলাল হোসেনের নির্দেশে তাৎক্ষণিক পদক্ষেপ গ্রহণ করে বিয়ে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

তিনি আরো জানান, পরে সেখানে স্থানীয় জনসাধারণের সাথে বাল্যবিয়ের কুফলের বিষয়ে মতবিনিময় করা হয়। মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) গাজী তারেক সালমান। উপস্থিত এলাকার সাধারণ জনগণরা অঙ্গীকার করেন তাদের গ্রামে কখনও বাল্যবিয়ের সুযোগ দেবেন না। এ সময় মিরপুর থানা পুলিশের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *