বাল্যবিয়ের বলি হলো চুয়াডাঙ্গা রাজাপুরেরর কিশোরী বধূ রাবেয়া : বিয়ের এক মাসের মাথায় রহস্যজনক মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার: বাল্যবিয়ের বলি হলো আলমডাঙ্গার কায়েতপাড়ার কিশোরী বধূ রাবেয়া খাতুন। বিয়ের মাস না পুজতেই রাবেয়া লাশ হলো। পিতার বাড়ি চুয়াডাঙ্গার রাজাপুর থেকে রাবেয়ার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তার পিতা পক্ষের লোকজন বলছেন রাবেয়া গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। তবে প্রতিবেশীরা বলছেন, রাবেয়ার মৃত্যু রহস্যজনক। এ ব্যাপারে থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। ময়নাতদন্ত হয়েছে লাশের।
জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার আলুকদিয়া ইউনিয়নের রাজাপুর গ্রামের মল্লিকপাড়ার আবদুর রাজ্জাকের মেয়ে রাবেয়া খাতুন (১৪) আলুুকদিয়া রোমেলা খাতুন মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণির ছাত্রী ছিলো। মাসখানেক আগে তার ইচ্ছের বিরুদ্ধে বিয়ে দেয়া হয়। আলমডাঙ্গা উপজেলার কায়েতপাড়ার কনক আলীর সাথে রাবেয়ার বিয়ে হয়। বিয়ের পর সে স্বামীর বাড়িতে যেতে রাজি হয় না। সে লেখাপড়া শিখতে চায়। এরপরও সম্প্রতি তাকে জোর করে স্বামীর বাড়িতে পাঠানো হয়। সেখান থেকে ফিরে আসার পর পরিবারের লোকজন মানসিকভাবে নির্যাতন করতে থাকে রাবেয়াকে। রাবেয়াকে আবারও জোর করে স্বামীর বাড়িতে পাঠানোর চেষ্টা করে। এরই মধ্যে গতকাল সোমবার বেলা দেড়টার দিকে পিতার বাড়ির একটি কক্ষে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখা যায় রাবেয়াকে। তাকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। জরুরি বিভাগের দায়িত্বরত ডাক্তার তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। পরে বিকেলে রাবেয়ার লাশের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়।

Leave a comment

Your email address will not be published.