বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সাধারণ সভায় হুইপ ছেলুন জোয়ার্দ্দার এমপি

সরকারের সাথে ব্যবসায়ীদের সম্পর্ক যেকোনো সময়ের চেয়ে অনেক বেশি সৌহার্দ্যপূণ
স্টাফ রিপোর্টার: দীর্ঘ ৭ বছর পর বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টায় জেলা শিল্পকলা একাডেমি প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিতসভায় আহ্বায়ক কমিটি গঠনের প্রস্তাবনা সদস্যদের আপত্তির প্রেক্ষিতে ভেস্তে যায়। ফলে শিগগিরই নির্বচানী তফশিল ঘোষণা করা হবে প্রতিশ্রুতি দেন বহু আগেই মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটির নেতৃবৃন্দ।
বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির সাধারণ সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের জেলা সভাপতি হাজি আসাদুল হোসেন জোয়ার্দ্দার লেমন। প্রধান অতিথি ছিলেন জাতীয় সংসদের হুইপ সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন এমপি। প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, একমাত্র আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলেই দেশ ও জাতির উন্নয়ন হয়। বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল, মানুষের জীবনযাত্রার মান বেড়েছে। আর যারা দেশের স্বাধীনতায় বিশ্বাসী নন, তারা দেশের উন্নতি করে না। তিনি বলেন, সরকার যেমন ব্যবসায়ীদের সহায়তা করছে, তেমনি ব্যবসায়ীরাও সরকারকে সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে। সরকারের সাথে ব্যবসায়ীদের সম্পর্ক যেকোনো সময়ের চেয়ে অনেক বেশি সৌহার্দ্যপূণ। এ দেশকে বিশ্বের কাছে উন্নত দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে সরকার যেমন বদ্ধপরিকর, তেমনি ব্যবসায়ীরাও বাংলাদেশের অর্থনৈতিক মুক্তি আনতে নিরলসভাবে পরিশ্রম করছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জাতি আজ ঐক্যবদ্ধ হয়ে মধ্য আয়ের একটি উন্নত, ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার দৃঢ় সংকল্পে যে কাজ করছেন, ব্যবসায়ীরাও তার অন্যতম অংশীদার বলে মনে করেন তিনি।  আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর চুয়াডাঙ্গার উন্নয়ন হয়েছে। এ সরকারের আমলে জেলার রাস্তঘাট, ব্রিজ কালভার্ট হয়েছে। চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে উন্নয়ন হয়েছে। আমরা ১০শ’ শয্যা থেকে আড়াইশো শয্যায় উন্নতি করতে পেরেছি। হাসপাতাল থেকে দালল মুক্ত করা হয়েছে। এখন নিয়মিত পরিষ্কার পরিছন্ন করা হচ্ছে। সার্বিক উন্নয়নে কাজ করছে বর্তমান সরকার। জীবন বাজি রেখে জঙ্গি দমন করে শান্তি ফিরিয়ে এনেছেন। দেশে একের পর এর উন্নয়ন করে যাচ্ছেন। এসব উন্নয়নের কথা জনগণের কাছে তুলে ধরতে হবে এবং শান্তি ও উন্নয়নের জন্য নৌকায় ভোট চাইতে হবে।
সমিতির সাধারণ সম্পাদক ইবরুল হাসান জোয়ার্দ্দার বার্ষিক প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন। আয়-ব্যয়ের হিসাব দাখিল করেন কোষাধ্যক্ষ তহিবুর রহমান জোয়ার্দ্দার বাবু। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সহসভাপতি হাজি শাহাবুদ্দিন মল্লিক, সিনিয়র সহসভাপতি আবদুল কাদের জগলু, সাধারণ সভায় একটি আহ্বায়ক কমিটি প্রস্তাব করা হলে দোকান মালিকদের বিরোধিতায় তা ভেস্তে যায়। পরে নেতৃবৃন্দ একটি নির্বাচনের মাধ্যমে পরবর্তী কমিটি গঠনের আশ্বাস দেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন আইন উপদেষ্টা হাজি অ্যাড. সেলিম উদ্দীন খান ও অ্যাড. তছিরুল আলম মালিক।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *