বাংলাদেশ ও চীনের মধ্যে ৬টি চুক্তি স্বাক্ষর

স্টাফ রিপোর্টার: বাংলাদেশ এবং চীন সরকারি ও বেসরকারি খাতে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক আরো জোরদারে ছয়টি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে। এর মধ্যে তিনটি হচ্ছে- সমঝোতা স্মারক (এমওইউ), দুটি সহযোগিতা চুক্তি এবং শিক্ষা, গণমাধ্যম ও বাণিজ্য খাত সংক্রান্ত একটি বিনিময় নোট। গতকাল রোববার রাতে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও চীনের সফররত উপ-প্রধানমন্ত্রী লিও ইয়ানডং-এর মধ্যে বৈঠক শেষে এসব চুক্তি স্বাক্ষর হয়। শেখ হাসিনা এবং লিও ইয়ানডং এসব চুক্তি স্বাক্ষর প্রত্যক্ষ করেন।

দুদেশের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মধ্যে শিক্ষা সহযোগিতা সংক্রান্ত এমওইউ’তে স্বাক্ষর করেন বাংলাদেশের শিক্ষা সচিব মো. নজরুল ইসলাম খান এবং চীনের শিক্ষামন্ত্রী ইউয়ান গুইরেন।

বাংলাদেশের তথ্য মন্ত্রণালয় ও চীনের প্রেস ও পাবলিকেশন সংক্রান্ত রাষ্ট্রীয় প্রশাসনের মধ্যে বেতার, টেলিভিশন ও চলচ্চিত্র খাতে সহযোগিতা সংক্রান্ত এমওইউ’তে স্বাক্ষর করেন বাংলাদেশের তথ্য সচিব মর্তুজা আহমেদ এবং চীনের উপমন্ত্রী টং গেং।

এছাড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও বেইজিং ফরেন স্টাডিজ ইউনিভার্সিটির (বিএফএসইউ) মধ্যে ছাত্র-ছাত্রী, ফেকাল্টি, স্কলার্স ও প্রশাসনিক স্টাফ বিনিময়, গবেষণা সহযোগিতা এবং শিক্ষা সংক্রান্ত তথ্য-উপাত্ত বিনিময় আরেকটি এমওইউ স্বাক্ষরিত হয়। এই এমওইউ’তে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক এবং বিএফএসইউ প্রেসিডেন্ট পেং লং স্বাক্ষর করেন। টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং সংক্রান্ত জয়েন্ট আন্ডার গ্রাজুয়েট প্রোগ্রামে সহযোগিতার লক্ষ্যে বাংলাদেশের সাউথ-ইস্ট ইউনিভার্সিটি ও চীনের উহান টেক্সটাইল ইউনিভার্সিটির (ডব্লিউটিইউ) মধ্যে একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। এতে সাউথ-ইস্ট ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ড. আনোয়ার হোসেন এবং ডব্লিউটিইউ’র আচার্য ওয়ে ইলিয়াং স্বাক্ষর করেন।

এদিকে বাংলাদেশের বিজিএমইএ ইউনিভার্সিটি অব ফ্যাশন অ্যান্ড টেকনোলজি এবং চীনের ডব্লিউটিইউ’র মধ্যে ফ্যাশন ডিজাইন সংক্রান্ত জয়েন্ট আন্ডার গ্রাজুয়েট প্রোগ্রামের লক্ষ্যে একটি সহযোগিতা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। বিজিএমইএ ইউনিভার্সিটির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মোজাফফর ইউ সিদ্দিক এবং ডব্লিউটিইউ’র আচার্য ওয়ে ইলিয়াং চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন। বাংলাদেশ ও চীনের মধ্যে কন্টেইনার পরিদর্শন সরঞ্জাম প্রকল্প সংক্রান্ত একটি বিনিময় নোটও স্বাক্ষরিত হয়েছে। এতে বাংলাদেশের ইআরডি’র সিনিয়র সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ উদ্দিন এবং বাংলাদেশে চীনের রাষ্ট্রদূত মা মিংকিয়াং স্বাক্ষর করেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *