ফেনসিডিল পাচার ও রাখার অপরাধে দুজনের জেল-জরিমানা

চুয়াডাঙ্গা যুগ্ম দায়রা জজ দ্বিতীয় আদালতে বিচারাধীন মামলার রায় ঘোষণা

 

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা কোর্টপাড়ার শফিকুল ইসলাম ও গোপালগঞ্জ জেলার কোটালিপাড়ার বাওরগান গ্রামের মুছাকে তিন বছরের সশ্রম কারাদণ্ড এবং পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন আদালত। অনাদায়ে আরও এক বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। ফেনিসিডিলসহ ধরা পড়া মামলায় চুয়াডাঙ্গা যুগ্ম দায়রা জজ দ্বিতীয় আদালত গতকাল সোমবার এ কারাদণ্ডাদেশ দেন। আসামি শফিকুল ইসলামের উপস্থিতিতে আদালতের বিজ্ঞ বিচারক মো. আব্দুর রহিম এ রায় ঘোষণা করেন। মামলার আরেক আসামি মুছা পলাতক রয়েছে।

মামলাসূত্রে জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা পৌর শহরের কোর্টপাড়ার জাহিদুল ইসলামের ছেলে শফিকুল ইসলাম ও গোপালগঞ্জ কোটালিপাড়ার উপজেলা বাওরগান গ্রামের মৃত নওশের আলীর ছেলে মুছাকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চুয়াডাঙ্গা ডিবি পুলিশ ২০০৬ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর চুয়াডাঙ্গা মহাসড়কে একটি যাত্রীবাহী বাস থেকে ২৯ বোতল ফেনসিডিলসহ আটক করে। পুলিশ আটক দুজনকে আদালতে সোপর্দ করে। চুয়াডাঙ্গা যুগ্ম দায়রা জজ দ্বিতীয় আদালতে বিচারাধীন মামলার রায় ঘোষণা করা হয় গতকাল সোমবার দুপুরে। আসামি শফিকুল ইসলামের উপস্থিতিতে তাকে ১৯৭৪ সনের বিশেষ ক্ষমাতা আইনে ২৫/বি(বি) ধারায় ফেনসিডিল পাচার ও নিজ দখলে রাখার অপরাধে দোষী সাব্যস্ত করে তিন বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও পাঁচ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরও এক বছরের কারাদণ্ডাদেশ দেন। মামলার অপর আসামি মুছা পলাতক থাকায় গ্রেফতারের পর থেকে তার সাজার মেয়াদ শুরু হবে বলে রায়ে উল্লেখ করা হয়।

Leave a comment

Your email address will not be published.