ফাঁসি দেয়ার পূর্বে পরিবারের সাথে শেষে সাক্ষাৎকার ও কর্মীদের প্রতি কাদের মোল্লার আহ্বান

 

স্টাফ রিপোর্টার: মৃত্যুদণ্ড কার্যককে কাদের মোল্লা  নিজের শাহাদাত হিসেবে মন্তব্য করেছেন। তিনি তার পরিবারের সদস্যদের সাথে শেষ সাক্ষাতের সময় এ মন্তব্য করে বলেছেন আমার শাহাদতের পর কোনো ধরনের ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ডে নিয়োজিত না হতে দলের নেতাকর্মী ও সমর্থকদের প্রতি অনুরোধ জানাচ্ছি।

গতকাল বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে জামায়াতে ইসলামীর পক্ষ থেকে একথা জানান হয়। এতে বলা হয়, ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পরিবারের সদস্যরা আব্দুল কাদের মোল্লার সাথে সাক্ষাৎ করতে গেলে তিনি এ অনুরোধ জানান। কাদের মোল্লা বলেন, ‘আমার শাহাদাতের পর যেন ইসলামী আন্দোলনের কর্মীরা চরম ধৈর্য্য ও সহনশীলতার পরিচয় দিয়ে আমার রক্তকে ইসলাম প্রতিষ্ঠার জন্য কাজে লাগায়। কোনো ধরনের ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ডে যেন জনশক্তি নিয়োজিত না হয়। যারা আমার জন্য আন্দোলন করতে গিয়ে জীবন দিয়েছে, আমি তাদের শাহাদাত কবুলিয়াতের জন্য আল্লাহর কাছে দোয়া করি এবং তাদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করি। আল্লাহ তাদেরকে সর্বত্তোম পুরস্কার দান করুন।’

জামায়াতের এ সহকারী সেক্রেটারি আরো বলেন, ‘আমি আগেই বলেছি, সম্পূর্ণ অন্যায়ভাবে এ সরকার আমাকে হত্যা করতে চাচ্ছে, আমি মজলুম। আমার অপরাধ আমি ইসলামী আন্দোলনের নেতৃত্ব দিয়েছি। শুধুমাত্র এ কারণেই এ সরকার আমাকে হত্যা করছে। আমি আল্লাহ্, রাসুল (সা.) এবং কোরআন ও সুন্নাহতে বিশ্বাসী। আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, আমার এ মৃত্যু হবে শহীদি মৃত্যু। আর শহীদের স্থান জান্নাত ছাড়া আর কিছু নয়। আল্লাহ আমাকে শাহাদাতের মৃত্যু দিলে, এটা হবে আমার জীবনের সর্বশ্রেষ্ট পাওয়া। আর এ জন্য আমি গর্বিত।’

কাদের মোল্লা বলেন, ‘আমি বিশ্বাস করি, জীবন-মৃত্যুর মালিক আল্লাহ। আমাকে ১০ ডিসেম্বর রাতেই সরকার হত্যা করতে চেয়েছিলো। কিন্তু আল্লাহ তায়ালা সেদিন আমার মৃত্যু নির্ধারণ করেননি। যেদিন আল্লাহর ফায়সালা হবে, সেদিনই আমার মৃত্যু হবে। শহীদি মৃত্যুর চাইতে বড় সৌভাগ্য আর কিছু নয়। আজীবন আমি সে মৃত্যু কামনা করেছি, আজও করছি। আমার অনুরোধ, আমার শাহাদাতের পর ইসলামী আন্দোলনের কর্মীরা যেন ধৈর্য্য ও সহনশীলতার পরিচয় দেয়। তারা যেন কোনো ধরনের ধ্বংসাত্মক বা প্রতিহিংসা পরায়ণ কর্মকাণ্ডে লিপ্ত না হয়’ যোগ করেন তিনি। ইসলামী আন্দোলনের কর্মীদের উদ্দেশে জামায়াতের এ নেতা বলেন, ‘শাহাদাতের রক্তপিচ্ছিল পথ ধরে অবশ্যই ইসলামের বিজয় আসবে। আল্লাহ যাদেরকে সাহায্য করেন, তাদেরকে কেউ দাবিয়ে রাখতে পারে না।’ তিনি বলেন, ‘ওরা আব্দুল কাদের মোল্লাকে হত্যা করে ইসলামী আন্দোলনের অগ্রযাত্রা ব্যাহত করতে চায়। আমি বিশ্বাস করি, আমার প্রতিফোঁটা রক্ত ইসলামী আন্দোলনের অগ্রযাত্রাকে তীব্র থেকে তীব্রতর করবে এবং জালেম সরকারের পতন ডেকে আনবে।’

‘আল্লাহর দ্বীন প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে যেন ইসলামী আন্দোলনের কর্মীরা আমার রক্তের বদলা নেয়’ যোগ করেন কাদের মোল্লা। তিনি তার স্ত্রীর উদ্দেশে বলেন, ‘আমি পরিবারের অভিভাবক ছিলাম। আমার পরে আল্লাহ আমার পরিবারের অভিভাবক হবেন। তুমি পরিবারকে দেখাশোনা করবে মাত্র। আল্লাহর কাছে আমি দোয়া করি, তোমার এ দায়িত্ব পালন শেষ হওয়ার পরই যেন আল্লাহ তায়ালা তোমাকে আমার কাছে নিয়ে আসেন।’ জামায়াতের শীর্ষস্থানীয় এ নেতা বলেন, ‘খবরে দেখেছি ১০ বছরের শিশুদেরকে হত্যা করা হয়েছে। ইসলামী আন্দোলনের কর্মীদের রক্তে ভাসছে দেশ। এ রক্তের বদলা অবশ্যই আল্লাহ দিবেন।’ তিনি বলেন, ‘আমি মোটেই বিচলিত নই, আমি দেশবাসীর দোয়া চাই। আমার জীবনের বিনিময়ে যেন ইসলামী আন্দোলন, দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বকে আল্লাহ হেফাজত করেন, এটাই আমার কামনা।’

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *