ফরমালিন অপব্যবহারের শাস্তি যাবজ্জীবন

স্টাফ রিপোর্টার: ফরমালিন অপব্যবহারের সর্বোচ্চ সাজা যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের বিধান রেখে ‘ফরমালিন নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১৪’-এরখসড়ারচূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। কারাদণ্ডের পাশাপাশি ২০ লাখ টাকাজরিমানার বিধানও রাখা হয়েছে আইনে। গতকাল সচিবালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখহাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার বৈঠকে এ অনুমোদন দেয়া হয়। বৈঠক শেষেমন্ত্রিসভার সিদ্ধান্তের কথা সাংবাদিকদের জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিবমোহাম্মদ মোশাররাফ হোসাইন ভূঁইঞা বলেন, ফরমালিনের অপব্যবহার এখন শঙ্কারকারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে, ফরমালিনের অপব্যবহার রুখতে এবং মাত্রা নিয়ন্ত্রণে এআইন করা হচ্ছে। এ আইন অনুযায়ী লাইসেন্স ছাড়া আমদানি, উৎপাদন, পরিবহন, মজুত, বিক্রয় ও ব্যবহার করা যাবে না। লাইসেন্সপ্রাপ্তদের চাহিবামাত্রকর্তৃপক্ষকে ফরমালিনের হিসাব দেখাতে হবে এবং লাইসেন্সপ্রাপ্তদের ফরমালিনেরহিসাব রাখতে হবে। ফরমালিনের অপব্যবহার রোধে এ আইনে বিভিন্ন  মেয়াদে শাস্তিরসুপারিশ করা হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, লাইসেন্স ছাড়া ফরমালিনআমদানি, উৎপাদন, পরিবহন, মজুত, বিক্রয় ও ব্যবহার করলে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও২০ লাখ টাকা জরিমানার বিধান রাখা হয়েছে। ফরমালিনের লাইসেন্স শর্ত ভঙ্গ করলেসাত থেকে দুই বছর কারাদণ্ড বা ৫ লাখ টাকা থেকে ২০ লাখ টাকা পর্যন্ত জরিমানাবা উভয় দণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে। এছাড়া ফরমালিন উৎপাদনে ব্যবহার করা যায় সেরকম যন্ত্রপাতি রাখলেও দণ্ডের বিধান রয়েছে। তিনি জানান, লাইসেন্স ছাড়া বাঅবৈধভাবে ফরমালিন দখলে রাখলে সর্বোচ্চ সাত বছর ও সর্বনিম্ন ২ বছর কারাদণ্ডএবং সর্বোচ্চ ৫ লাখ টাকা জরিমানার বিধান রাখা হয়েছে আইনে।

চূড়ান্ত অনুমোদিতআইনে বলা হয়েছে, ফরমালিনের অপব্যবহার রোধে এ আইনে মোবাইল কোর্ট বিচার করতেপারবে, তবে শাস্তির পরিমাণ বেশি হলে মোবাইল কোর্ট সংশ্লিষ্ট কোর্টে মামলাস্থানান্তর করতে পারবে। মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, এ আইনের মাধ্যমেফরমালিনের উৎপাদন, আমদানি, ব্যবহার ও মজুত ইত্যাদি নিষিদ্ধ করা হচ্ছে না।মূলত ফরমালিনের ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ ও অপব্যবহার রোধে এ আইন করা হচ্ছে।ফরমালিন, ফরমালডিহাইড, প্যারাফরমাডিহাইড বা এর যে কোন মাত্রার সলিউশন বাদ্রবণ ইত্যাদি ফরমালিনের সংজ্ঞা এ আইনের আওতায় আসবে, তবে আইন হওয়ার পর আরওবিধি তৈরি করে এর আওতা নির্ধারণ করা হবে। খসড়া আইনে ৬টি অধ্যায় এবং ৩৭টিধারা রয়েছে। আইনটির বিস্তারিত জানাতে গিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ফরমালিনআইন ফৌজদারি কার্যবিধির বর্ণিত পন্থায় এর প্রয়োগ নিশ্চিত করা হবে (পরোয়ানা, গ্রেপ্তার বা তল্লাশি ইত্যাদি)। এ আইনের আওতায় যে অপরাধ তাকগনেজিবল বা আমলযোগ্য হবে অর্থাৎ ওয়ারেন্ট ছাড়া গ্রেফতার করতে পারে, অনাপোষযোগ্য এবং অজামিনযোগ্য হবে। এ আইনের মাধ্যমে প্রতি উপজেলা ও জেলায়ফরমালিন নিয়ন্ত্রণ কমিটি করা হবে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *