পরিচয় উন্মোচনের আগেই চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে মারা গেলেন মধ্যবয়সী মহিলা

স্টাফ রিপোর্টার: পরিচয় উন্মোচনের আগেই মারা গেলেন অজ্ঞাত পরিচয়ের মধ্যবয়সী নারী। গতপরশু দুপুরে মহিলাকে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গতকাল শনিবার বেলা ১১টার দিকে তিনি মারা যান। মৃতদেহ গতরাতে হাসপাতালের লাশ রাখা ঘরে রাখা ছিলো।

পরিচয় না মিললে আজ রোববার অজ্ঞাত পরিচয়ের লাশ হিসেবে আঞ্জুমান মফিদুল ইসলামের মাধ্যমে দাফন কাজ সম্পন্ন করা হতে পারে। চোখে মুখে গিজ গিজ করছে পোকা। গতপরশু দুপুরে কলিমুদ্দিন নামের একজন এ মহিলাকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগে রেখে ফিরে যান। তিনি তার নিজের পরিচয়টিও ঠিক মতো দেননি। শুধু বলেছেন, তার বাড়ি কাথুলীতে। মহিলা কোথায় ছিলেন, কোথা থেকে উদ্ধার করে তাকে হাসপাতালে নেয়া হয়েছে? এসব প্রশ্নের জবাব অবশ্য তিনি দেননি।

কালো লাল ছাপা শাড়ি আর কালো পেটিকোট পরা মহিলা রুগ্ন। তার চোখে ও মাথায় পোকা। দুগন্ধ ছড়াচ্ছিলো। মূলত অপরিস্কারের কারণেই ওই অবস্থায় ছিলেন তিনি। হাসপাতালে ভর্তির পর তাকে অপারেশন থিয়েটারের সামনের বরান্দায় ফেলে রাখা হয়। গতকাল সার্জিকেল কনসালটেন্ট ডা. নয়ন মহিলাকে দেখে চিকিৎসা দেয়ার প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেন। পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করার প্রক্রিয়া করেন। এরই মাঝে ১১টার দিকে মারা যান ওই মহিলা। মৃত্যুর পর লাশ রাখা হয় লাশ রাখা ঘরে। গতকাল শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত মহিলার মৃতদেহ দেখে কেউ শনাক্ত করতে পারেনি। আজকের দুপুরের মধ্যে তার পরিচয় না মিললে বেওয়ারিশ হিসেবে দাফন করার ব্যবস্থা নেয়া হতে পারে।

Leave a comment

Your email address will not be published.