পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের পর তটস্থ প্রশাসন : পুলিশসহ ঘটনাস্থলে হানা : ৪ জনের নামে মামলা : ১ জনের ৩০ হাজার টাকা জরিমানা

দামুড়হুদা প্রতিনিধি: দামুড়হুদায় সরকারি খাস জমি কেটে বালি উত্তোলনের অপরাধে ৪ বালি ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে মামলা দায়েরসহ আনোয়ার নামের এক বালি ব্যবসায়ীকে (ট্রাক্টরমালিক) ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। গতকাল রোববার বেলা ১২টার দিকে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফরিদুর রহমান ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে বালুমহল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইন ২০১০’র ৪ ধারায় ওই বালি ব্যবসায়ীকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করেন এবং ঘটনার সাথে জড়িত অপর ৪ বালি ব্যবসায়ী উপজেলার কার্পাসডাঙ্গা গ্রামের আব্দুর রহমানের ছেলে আবুল কাশেম, একই গ্রামের কেরামত আলীর ছেলে শওকত আলী, চিৎলা গ্রামের হাজারী মণ্ডলের ছেলে গিয়াস উদ্দিন ও পাটাচোরা গ্রামের শফি উদ্দিনের ছেলে মাসুদের বিরুদ্ধে উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার গোলাম মোস্তফা বাদী হয়ে বালুমহল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইনে মামলা দায়ের করেন। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকাজে সহযোগিতা করেন দামুড়হুদা মডেল থানার এসআই রবিউল হোসেন ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সিএ ফয়জুল ইসলাম।

উল্লেখ্য, গত রোববার দৈনিক মাখাভাঙ্গা পত্রিকার প্রথম পাতায় ‘দামুড়হুদায় সরকারি খাসজমি কেটে বালি উত্তোলন : প্রশাসন নীরব’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হয়। সংবাদ প্রকাশের সাথে সাথে নড়েচড়ে বসেন সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের লোকজন। তাৎক্ষণিকভাবে পুলিশসহ একটি বিশেষ টিম ঘটনাস্থলে হানা দিলে সরকারি খাসজমি থেকে বালি উত্তোলনকারীরা পুলিশ দেখে পালিয়ে যায়। ওই সময় ঘটনাস্থল থেকে বালি ব্যবসায়ী আনোয়ারকে আটক করা হয় এবং দুপুরে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে তাকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক। এদিকে মাথাভাঙ্গা পত্রিকায় ওই সংবাদ প্রকাশ করায় দৈনিক মাথাভাঙ্গার সম্পাদক ও প্রকাশকসহ ওই প্রতিবেদক এবং সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কর্মকর্তাদের প্রতি আন্তরিক সাধুবাদ জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *