নির্বাচনী দায়িত্বে ২৬ কোটি টাকার বাজেট দিয়েছে সশস্ত্র বাহিনী

স্টাফ রিপোর্টার: দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দায়িত্ব পালনের জন্য নির্বাচন কমিশনে (ইসি) ২৬ কোটি টাকার সম্ভাব্য খরচের বাজেট পাঠিয়েছে সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ। গত সপ্তায় এ সংক্রান্ত চিঠি ইসি সচিবালয়ে পৌঁছেছে বলে নিশ্চিত করেছেন একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা। যদিও অর্ধেকের বেশি আসনেই এবার ভোট গ্রহণের প্রয়োজন নেই। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের কারণে ১৫৪টি আসনে প্রার্থীরা প্রাথমিকভাবে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) মো. জাবেদ আলী বলেন, নির্বাচনে সেনা মোতায়েন করা হবে এটা নিশ্চিত। তবে কবে থেকে তারা দায়িত্ব পালন করবেন তা এখনও ঠিক হয়নি। ১৯ ডিসেম্বরের পরে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।  দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রধানদের নিয়ে ফের আগামী ১৯ ডিসেম্বর বৈঠক করবে নির্বাচন কমিশন। এবার বৈঠকে রিটার্নিং অফিসারদের রাখা হচ্ছে। বৈঠক সংক্রান্ত চিঠি সশস্ত্র বাহিনী, স্বরাষ্ট্র ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়, পুলিশ মহাপরিদর্শক, বিজিবি, আনসার-ভিডিপি, কোস্ট গার্ড, এনএসআই, এসবি, ডিজিএফআই, ৱ্যাবসহ সংশ্লিষ্টদের দেয়া হয়েছে। সেখানেই কবে সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হবে তা নির্ধারিত হবে। তবে কমিশন ২৬ নভেম্বর থেকে সেনা মোতায়েনের পরিকল্পনা করে। যেসব আসনে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে সেখানেই সেনা মোতায়েন নাকি সারাদেশে মোতায়েন হবে সেটা এখনও নিশ্চিত নয়। এর আগে নির্বাচনে দায়িত্ব পালনে ইসির কাছে দেড়শ কোটি টাকা চেয়েছিলো পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স।

গত ১২ ডিসেম্বর সিইসি কাজী রকিবউদ্দীন আহমদ বলেছিলেন, সেনাবাহিনীকে অ্যালার্ট রাখা হয়েছে। এযাবতকালে প্রতিটি নির্বাচনেই সেনাবাহিনী ছিলো। এবারো সেনাবাহিনীকে মাঠে নামানো হবে। সেনাবাহিনীও প্রস্তুত রয়েছে। রাজনৈতিক উত্তাপের মধ্যে ১৯৯৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি নির্বাচনে ভোটের প্রচারণার সময় থেকে দু সপ্তার বেশি সেনা মোতায়েন ছিলো। ২০০৮ সালে অনুষ্ঠিত নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সব মিলিয়ে প্রায় ১৬৬ কোটি টাকা খরচ হয়। আর এবার শুধু পুলিশ বাহিনী চেয়েছে প্রায় ১৪৮ কোটি টাকা এবং সশস্ত্র বাহিনী চেয়েছে ২৬ কোটি টাকা। আগামী নির্বাচনে সব মিলিয়ে ৫০০ কোটি টাকা বাজেট নির্ধারিত আছে। এ বাজেটের ওপর আপত্তি জানিয়ে খরচ কমানোর পরামর্শও দিয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয়। নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত তফশিল অনুযায়ী আগামী ৫ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে দশম সংসদ নির্বাচন। বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ১৫৪ জন নির্বাচিত হওয়ায় ১৪৬ আসনে নির্বাচন হবে। আর ওই নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন ৩৮৬ জন প্রার্থী।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *