নির্জন রাস্তা থেকে মুর্মূষ অবস্থায় উদ্ধার করা নারীর মৃত্যু

চুয়াডাঙ্গা দামুড়হুদার চণ্ডিপুর-সড়াবাড়িয়া সড়কে মোটরসাইকেল দুঘটনা?
দর্শনা অফিস/কুড়ুলগাছি প্রতিনিধি: দামুড়হুদা ধান্যঘরার আঞ্জুরা ওরফে আঞ্জুয়ারা খাতুন (৩৯) মাথায় গুরুতর আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে মারা গেছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে চণ্ডিপুর-সড়াবাড়িয়া সড়কের মধ্যবর্তী মাঠের নির্জন স্থান থেকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসার এক পর্যায়ে গতরাত ৯টার দিকে তিনি মারা যান।
অজ্ঞাত ব্যক্তির মোটরসাইকেলযোগে তিনি মেয়ের বাড়ি সড়াবাড়িয়ায় যাওয়ার পথে দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হন বলে নিকটজনেরা জানালেও মোটরসাইকেলচালকের হদিস মেলেনি। ধান্যঘরার মৃত শাহাজানের স্ত্রী আঞ্জুরা খাতুন পপুলার লাইফ ইন্স্যুরেন্সের মাঠকর্মী ছিলেন বলে জানা গেছে।
এক ছেলে ও দু মেয়ের জননী আঞ্জুরা খাতুন মাথায় গুরুতর আঘাতপ্রাপ্ত হন। তিনি মোটরসাইকেলের পেছন থেকে আছড়ে পড়ে আহত হয়েছেন বলে নিকটজনেরা জানিয়ে বলেছেন, চণ্ডিপুর-সড়াবাড়িয়া সড়কের মধ্যবর্তী নির্জন স্থানে পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেন। খবর পেয়ে তার মেয়েসহ নিকটজনেরা হাসপাতালে তার শয্যাপাশে ছুটে আসেন। চিকিৎসার এক পর্যায়ে তিনি মারা গেলে লাশ রাতেই তার নিজ গ্রাম ধান্যঘরায় নেয়ার প্রক্রিয়া করা হয়। আজ শুক্রবার দাফন করা হতে পারে।
বছরখানেক আগে আঞ্জুরা খাতুনের স্বামীর মৃত্যু হয় বলে জানিয়েছেন পরিবারের সদস্যরা। আঞ্জুরার মৃত্যুর পর ইন্স্যুরেন্সের এক সদস্য হাসপাতালে জানান, তিনি তার জামাইয়ের সাথেই মেয়ের বাড়ি যাচ্ছিলেন। এ উক্তির অবশ্য সত্যতা নিশ্চিত করা সম্ভব হয়নি। পরিবারের সদস্যরা তা অস্বীকার করে বলেছেন, কার মোটরসাইকেলযোগে সড়াবাড়িয়ায় যাচ্ছিলেন তা জানা সম্ভব হয়নি।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *