নিরাপত্তাকর্মীর পায়ের রগ কেটেছে চোরচক্র! ঢাকায় রেফার্ড

চুয়াডাঙ্গার দর্শনা আন্তর্জাতিক রেলইয়ার্ডে চোরচক্রের অপতৎপরতা অব্যাহত

 

স্টাফ রিপোর্টার: দর্শনা আন্তর্জাতিক রেলইয়ার্ডে নিরাপত্তাকর্মী সাইফুল ইসলামের (২৭) পায়ের রগ কেটে দিয়েছে স্থানীয় চোরচক্র। গতকাল সোমবার বেলা ২টার দিকে রেলইয়ার্ডে হানা দেয়া চোরচক্রের পিছু ধাওয়া করলে দর্শনা শান্তিপাড়াস্থ হাজি শওকত আলীর গোডাউনের নিকট ধারালো অস্ত্র দিয়ে নিরাপত্তকর্মীর পায়ের রগ কেটে দেয়া হয় বলে জানিয়েছেন নিরাপত্তাকর্মী সাইফুল ইসলাম।

ডান পায়ের রগ কাটা অবস্থায় নিরাপত্তাকর্মী সাইফুল ইসলামকে উদ্ধার করে প্রথমে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে তাকে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালের উদ্দেশে নেয়া হয়েছে। পায়ের রগ কাটার কারণে স্বাভাবিকভাবে তিনি আর হাঁটতে পারবেন কি-না তা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন চিকিৎসক।

জানা গেছে, ঝিনাইদহ কালীগঞ্জের খেয়াবাগানের নূরুল ইসলামের ছেলে সাইফুল ইসলাম খুলনা আরএনবি সদস্য। তিনি দর্শনা আন্তর্জাতিক রেলইয়ার্ডের নিরাপত্তাকর্মী হিসেবে কর্মরত ছিলেন। গতকাল সোমবার বিকেলে তাকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়। এ সময় তিনি ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে বলেন, ভারত থেকে মালামাল নিয়ে মালবহন করা ট্রেন দেশে আসে। স্থানীয় জসিম গ্যাংসহ একাধিক গ্যাং রেলইয়ার্ডের মালগাড়ি থেকে মালামাল চুরি করে। সোমবার দুপুরে জসিম গ্যাং রেলইয়ার্ডে চুরির জন্য হানা দেয়। ধাওয়া করলে ওরা শান্তিপাড়ার হাজি শওকত আলীর গোডাউনের দিকে ছুটে পালায়। এক পর্যায়ে চোরচক্র ঘুরে দাঁড়িয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে রুখে দাঁড়িয়ে পায়ের রগ কেটে দিয়ে সটকে পড়ে। স্থানীয়দের সহযোগিতায় সহকর্মীরা উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করিয়েছেন।

উল্লেখ্য, দর্শনা রেলইয়ার্ডে চোরচক্রের উৎপাত নতুন নয়। দীর্ঘদিন ধরেই একাধিক গ্যাং মালামার চুরি করে। চুরিরোধে নিরাপত্তাকর্মীদের মাঝে মাঝে সক্রিয় হতে দেখা গেলেও অধিকাংশ সময়ই নিষ্ক্রীয় থাকতে দেখা যায়। ফলে চোরের উৎপাত দিন দিন যেমন বেড়েই চলেছে, তেমনই দর্শনা আন্তর্জাতিক রেলরুট দিয়ে আমদানিতে আমদানিকারক প্রতিষ্ঠানের কর্তারা আগ্রহ হারাচ্ছেন। ইতঃপূর্বে চোরচক্রের সাথে যেমন ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে, তেমনই সম্প্রতি বিজিবির হাতে ধরা পড়ে এক চোর। এর এক পর্যায়ে নিরাপত্তাকর্মীর রগ কাটার ঘটনা ঘটলো।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *