নিমতলা বিজিবির হাতে ভারতীয় নাগরিক আটক : বৈঠকে হয়নি সুরাহা

দর্শনা অফিস: দর্শনা নিমতলা সীমান্ত থেকে বাংলাদেশি যুবককে ধরে নিয়ে যায় বিএসএফ। সীমান্তে বিজিবি-বিএসএফ পতাকা বৈঠকে বাংলাদেশি যুবককে ফেরতের আশ্বাস দিলেও অবশেষে তাকে ফেরত দেয়নি। সোপর্দ করেছে ভারতীয় পুলিশের হাতে। দর্শনা নিমতলা বিজিবির হাতে আটক হয়েছে ভারতীয় নাগরিক। ফের পতাকা বৈঠকেও হয়নি কোনো সুরাহা। ভারতীয় নাগরিককে সোপর্দ করা হয়েছে থানা পুলিশের হাতে। সীমান্ত পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে বিজিবির টহল রয়েছে অব্যাহত।

জানা গেছে, জীবননগর উপজেলার উথলী ইউনিয়নের সিংনগর ব্রিজপাড়ার দিন মোহাম্মদের ছেলে নাজমুল হক (১৮) গত বৃহস্পতিবার দুপুরে দর্শনা নিমতলা মাঠে ঘাস কাটতে যায়। এ সময় ভারতে গেদে বিএসএফ সদস্যরা সীমান্ত থেকে জোরপূর্বক ক্যাম্পে নিয়ে যায় নাজমুলকে। এ খবর জানার পর দর্শনা বিজিবি কোম্পানি কমান্ডারের পক্ষ থেকে তাৎক্ষণিক কড়া প্রতিবাদ জানিয়ে দর্শনা জয়নগর সীমান্তে গেদে বিএসএফ’র সাথে পতাকা বৈঠকে বসে। পতাকা বৈঠকে বাংলাদেশি যুবককে ধরে নেয়ার জোর প্রতিবাদ জানানো হয় বিজিবির পক্ষ থেকে। বৈঠকে বিএসএফ’র পক্ষ থেকে এক যুবককে আটকের কথা স্বীকার করে গতকাল শুক্রবার পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে ফেরতের আশ্বাস দেয়া হয়। এছাড়া গতকাল শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ভারতের নদীয় জেলার কৃষ্ণগঞ্জ থানার মাটিয়ারি বানপুর পঞ্চায়েত এলাকার গেদে উত্তরপাড়ার শিব চাঁদ মজুমদারের ছেলে উত্তম মজুমদার নিমতলা সীমান্তের ৭৪ নং মেন পিলারের ২ এস সাব পিলার হয়ে অবৈধভাবে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করলে নিমতলা বিজিবি ক্যাম্পের হাবিলদার তোতা মিয়া নেতৃত্বে সঙ্গীয় সদস্যদের হাতে আটক হয়।

এদিকে নাজমুলকে ফেরত দেয়ার কথা থাকলেও বিএসএফ গড়িমশি করতে থাকে। অবশেষে খবর পাওয়া যায় ভারতে অবৈধ অনুপ্রবেশের অজুহাত দেখিয়ে নাজমুলকে বিএসএফ সোপর্দ করেছে কৃষ্ণগঞ্জ থানা পুলিশে। দুপুরে কোনো আনুষ্ঠানিকতা ছাড়ায় সীমান্তের ৭৪ নং মেন পিলারের নিকট বিজিবি-বিএসএফ’র কোম্পানি কমান্ডার পর্যায়ের সংক্ষিপ্ত পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। বেলা ১টা ১৫ মিনিট থেকে ২০ মিনিট পর্যন্ত স্থায়ী এ বৈঠকে কোনো সুরাহা হয়নি। বৈঠকে বিজিবির পক্ষ থেকে দর্শনা বিজিবি ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার সুবেদার আব্দুল আওয়াল হোসেন এবং নিমতলা বিজিবি ক্যাম্পের হাবিলদার তোতা মিয়াসহ সঙ্গীয় সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। বিএসএফ’র পক্ষে গেদে বিএসএফ ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার এসি সুরেশ কুমারসহ সঙ্গীয় সদস্যরা ছিলেন উপস্থিত। ফলে গতকালই ভারতীয় নাগরিক উত্তম মজুমদারকে জীবননগর থানায় সোপর্দ করেছেন নিমতলা বিজিবি সদস্যরা।

এদিকে বিএসএফ সীমান্ত থেকে নাজমুলকে ধরে নিয়ে যাওয়ায় তার পরিবারের মধ্যে শুরু হয়েছে কান্নার মাতম। বিরাজ করছে আতঙ্ক। সন্তানকে ফিরে না পাওয়া পর্যন্ত স্বস্তি ফিরে আসছে না নাজমুলের পরিবারের।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *