নাটকীয় জয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে হল্যান্ড

মাথাভাঙ্গা মনিটর: ৮৮ থেকে ৯৪। সাত মিনিটের একটা ঝড়ই যেন বয়ে গেলো মেক্সিকোর ওপর দিয়ে। আরসেই ঝড়েই শেষ হয়ে গেলো মেক্সিকোর কোয়ার্টার ফাইনালের স্বপ্ন। শেষমুহূর্তেদুটি গোল দিয়ে ২-১ ব্যবধানের নাটকীয় জয় দিয়ে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করলোহল্যান্ড।

গ্রুপ পর্বের প্রথম দু ম্যাচেও ডাচরা ঘুরে দাঁড়িয়েছিলো প্রথম পিছিয়েপড়ে। কিন্তু নক আউট পর্বের ম্যাচেও যে এমনটা ঘটে যাবে, সেটা হয়তো অনেকেইভাবেননি। তার ওপরে আবার মেক্সিকোর গোলপোস্টের নিচে দাঁড়িয়ে ছিলেন গিলের্মোওচোয়া। এবারের বিশ্বকাপের প্রথম তিনটি ম্যাচে যিনি হজম করেছেন মাত্র একটিগোল। স্বাগতিক ব্রাজিলের দারুণ সব গোল প্রচেষ্টা রুখে দিয়েছেন অবিশ্বাস্যদক্ষতায়। গতরাতের খেলায়ও ওচোয়ার বিশ্বস্ত হাত দু-তিনবার গোলবঞ্চিত করেছে হল্যান্ডকে।

৫৭ মিনিটে গোলপোস্টের একদম সামনে থেকে স্টেফান ডি ভ্রাইয়ের হেড রুখেদিয়েছেন ওচোয়া। ৭৩ মিনিটে মেক্সিকোর অধিনায়ক রাফায়েল মার্কুয়েজকে কাটিয়েবিপদজনকভাবে পেনাল্টি বক্সের ভেতরে ঢুকে পড়েছিলেন রোবেন। কিন্তু এবারও তারশট ফিরিয়ে দিয়েছেন মেক্সিকোর গোলরক্ষক।নিস্তরঙ্গ একটা প্রথমার্ধের পর দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই এগিয়ে গিয়েছিলমেক্সিকো। ৪৮ মিনিটের মাথায় পেনাল্টি বক্সের বাইরে থেকে জোড়ালো এক শটে গোলকরেছিলেন জিওভান্নি দস সান্তোস। এই লিডটা মেক্সিকো ধরে রেখেছিলো ৮৭ মিনিটপর্যন্ত।

কিন্তু ৮৮ মিনিটে ওয়েসলি স্নেইডারের জোড়ালো শট আর আটকাতে পারেননি ওচোয়া।১-১ গোলে সমতা ফেরায় হল্যান্ড। সবাই হয়তো ধরে নিয়েছিলেন যে খেলা গড়াবেঅতিরিক্ত সময়ে। কিন্তু ছয় মিনিট পরে পেনাল্টি বক্সের মধ্যে রোবেনকে ফাউলকরেন মেক্সিকান অধিনায়ক রাফায়েল মার্কুয়েজ। পেনাল্টি। দলকে জয়সূচক গোল এনেদেয়ার সুযোগটি নষ্ট করেননি ক্লাস-ইয়ান হান্টেলার। ২-১ গোলের জয় নিয়ে মাঠছেড়েছে ডাচরা।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *