নতুন ৩ জনসহ দেশে আক্রান্ত ২০

বিশ্বে মৃতের সংখ্যা ১০ হাজার ছাড়লো

স্টাফ রিপোর্টার: দেশে করোনা ভাইরাসে নতুন করে আরও ৩জন আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২০ জনে। নতুন আক্রান্ত ৭০ বছরের একজন পুরুষের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাকে আইসিইউতে রাখা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার বিকেলে আইইডিসিআর সভা কক্ষে করোনা ভাইরাস নিয়ে নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা এ তথ্য জানিয়েছেন। এদিকে, ১৮২টি দেশ ও অঞ্চলে মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়েছে নভেল করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯)। এতে সারাবিশ্বে মৃতের সংখ্যা ১০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। একদিনে গোটা বিশ্বে আক্রান্ত ১৫ হাজার ২১৭ এবং মৃত্যু ৯শ’ ছাড়িয়েছে। ইতালিতেই একদিনে আক্রান্ত ৪ হাজার ২০১ এবং মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪২৭। স্পেনে ২৪ ঘণ্টায় ২১০ জন মারা গেছে। ইরানে ১৮৯, জার্মানিতে ৪, নেদারল্যান্ডসে ৩০ জন মারা গেছে। এ ভাইরাসে গোটা বিশ্বে আক্রান্তের সংখ্যা দেড় লাখ ছাড়িয়ে গেছে।
রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর) এ সংবাদ সম্মেলনে অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় যাদের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে, তাদের মধ্যে তিনজন নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে একজন নারী, দুজন পুরুষ। নারীর বয়স ৩০ বছর। পুরুষ একজনের বয়স ৩০। আরেকজনের বয়স ৭০, তিনি আইসিইউতে আছেন ক্রিটিক্যাল অবস্থায়। তিনি অন্যান্য দুরারোগ্য ব্যাধিতে ভুগছিলেন। একজন ইতালিফেরত। আর দুজন প্রবাসীর সংস্পর্শে থেকে আক্রান্ত হয়েছেন। এখন পর্যন্ত দেশে আইসোলশনে আছেন ৩০ জন। প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে আছেন ৪৪ জন। এক প্রশ্নের জবাবে ডা. নাসিমা সুলতানা বলেন, কুর্মিটোলায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় যে দুজন মারা গেছেন, তাদের করোনা ভাইরাস সম্পর্কিত পরীক্ষার ফল নেগেটিভ এসেছে, অর্থাৎ তারা করোনায় আক্রান্ত ছিলেন না। ২৪ ঘণ্টায় ৩৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। আইইডিসিআর-এ করোনা সম্পর্কিত কল এসেছে দুই হাজার ২৬৯টি। আসন্ন বিভিন্ন নির্বাচন নিয়ে অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, নির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহার করায় করোনা হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে। নির্বাচন কমিশনকে বিষয়টি নিয়ে ভাবা উচিৎ বলে অতিরিক্ত মহাপরিচালক মনে করেন।
বর্তমানে ইউরোপ মহাদেশ করোনা মহামারীর কেন্দ্রে পরিণত হয়েছে। মহাদেশের বিভিন্ন দেশে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। ইরানে প্রতি ১০ মিনিটে একজন করোনা আক্রান্ত রোগী মারা যাচ্ছেন আর প্রতি ঘণ্টায় আক্রান্ত হচ্ছেন ৫০ জন। ভাইরাসটির বিস্তার ঠেকাতে মানুষের চলাফেরা কমাতে বিভিন্ন দেশ তাদের সীমান্ত বন্ধ করে দিচ্ছে ও ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। এরপরও বিস্তার রোধ করা যাচ্ছে না। এদিকে করোনা সংক্রমণ রোধে সক্ষম ৭৭টি রাসায়নিক পদার্থ চিহ্নিত করেছে।
আন্তর্জাতিক জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডওমিটারস ডট ইনফো’র হিসাব অনুযায়ী- বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার রাত ৯টা পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে করোনায় মোট ১০ হাজার ৮৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা দুই লাখ ৪৮ হাজার ৬৭৮। চিকিৎসা গ্রহণের পর সুস্থ হয়ে উঠেছে ৮৮ হাজার ৫৬৩ জন। উৎপত্তিস্থল চীনে আক্রান্তের সংখ্যা ৮০ হাজার ৯৬৭। এর মধ্যে তিন হাজার ২৪৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। চিকিৎসা গ্রহণের পর সুস্থ হয়ে উঠেছে ৭১ হাজার ১৫০ জন। ইতালিতে আক্রান্তের সংখ্যা ৪১ হাজার ৩৫। এর মধ্যে তিন হাজার ৪০৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। ইউরোপের অন্য দেশগুলোতে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা ক্রমাগত বাড়ছে। এ পর্যন্ত স্পেনে এক হাজার, ফ্রান্সে ২৬৪, যুক্তরাষ্ট্রে ২০৫, যুক্তরাজ্যে ১৪৪ জন মারা গেছেন।
করোনার বিস্তার ঠেকাতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ‘লকডাউন’, কারফিউ জারি, ফ্লাইট বাতিলসহ নানা পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। মক্কা-মদিনায় মসজিদ চত্বরে নামাজ স্থগিত করা হয়েছে। শ্রীলঙ্কায় পার্লামেন্ট নির্বাচন স্থগিত ও কারফিউ জারি করা হয়েছে। কারফিউ জারি করেছে আর্জেন্টিনাও। আর যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার ৪ কোটি মানুষকে ঘরে থাকতে বলা হয়েছে। বিশ্বে করোনা ভাইরাসে মৃত্যুর সংখ্যা গতকাল ১১ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ৬৬ হাজার ২০৮ জন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *