দৈনিক মাথাভাঙ্গার প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী মানেই উৎসবের আমেজ

????????????

ঊষালগ্নেই লাগলো মন মাতানো রঙের ছটা

স্টাফ রিপোর্টার: দৈনিক মাথাভাঙ্গার প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী মানেই উৎসবের আমেজ। সৃষ্টি সুখের উল্লাস। এবারও প্রতিষ্ঠাবাষির্কীর ঊষালগ্ন রাত ১২টায় বার্তাকক্ষে সম্পাদকপত্নী স্কুল শিক্ষিকা লুনা শারমীন শশীর সরব উপস্থিতি। মুখে হাসি, হাতে মিষ্টির হাড়ি আর দুধ-মাখনে তৈরি কেক। বার্তাকক্ষে ঢুকতেই করতালি দিয়ে স্বাগত জানিয়ে চোখের পলকে কেক কাটার আয়োজন। সম্পাদক সরদার আল আমিন তার দু সন্তান সাদরিল আমিন শ্রেষ্ঠ আর শাফিউল আমিন শীর্ষকে পাশে নিয়ে আর এক সন্তানতূল্য পত্রিকা দৈনিক মাথাভাঙ্গার জন্মদিনের কেক কেটে সূচনা করলেন সৃষ্টি সুখের উল্লাস মাখা উৎসবের। যদিও এবারের প্রতিষ্ঠাবাষির্কীর আয়োজনে রয়েছে ভিন্নতা। তারপরও বার্তা বিভাগে বার্তাসম্পাদক আহাদ আলী মোল্লাসহ স্টাফ রিপোর্টারদের পৃথকভাবে প্রস্তুতকৃত কেক কাটার আয়োজনে শুধু বার্তাকক্ষের নয়, গোটা দপ্তরের সকলের অংশগ্রহণ এক আবেগঘন পরিবেশ গড়ে তোলে। আরো উৎসাহে, আরো সুন্দর করার প্রত্যায়য়ে নিয়োজিত হন নিজ নিজ কাজে।

এবারের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পবিত্র রমজানের মধ্যে পড়ার কারণে কর্মসূচিতে আনা হয়েছে ভিন্নতা। ফজর বাদ মাথাভাঙ্গা ছাপাখানায় বিক্রয় প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে এলাকার দুটি মসজিদের মুসল্লিদের অংশগ্রহণে দোয়া। বিকেলে ব্যুরো অফিসগুলোতে আঞ্চলিক প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে ইফতার মাহফিল। আর ঈদের পর? অন্যবারের মতো পাতে কব্জি ডুবিয়ে খাওয়া। যাকে বলা হয় ভূরিভোজ। অবশ্য এর সাথে সাথে কর্মশালাও থাকবে এবার। সম্পাদনা পরিষদের সময়সূচিতে এরকমই রয়েছে পরিকল্পনা।

১৯৯১ সালের আজকের দিনে দৈনিক মাথাভাঙ্গার আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয়। প্রকাশনার আজ ছাব্বিশ বছর। সাফল্যগাঁথা ইতিহাস গড়ে দৈনিক মাথাভাঙ্গার অগ্রযাত্রায় আজকের দিনে অনেকেই শুভকামনা জানিয়েছেন। আগাম ফুলের তোড়াও পাঠিয়েছেন অনেকে। গতরাত ১২টা ১ মিনেটে প্রথমে সম্পাদকপত্নীর বিশেষ উদ্যোগে কেক কাটা ও মিষ্টিমুখের আয়োজন শেষে বার্তাকক্ষের আয়োজনে কাটা হয় কেক। এ সময় বার্তা সম্পাদক আহাদ আলী মোল্লা, জেনারেল ম্যানেজার হাসান আখতার সিদ্দিক পিন্টু, সহসম্পাদক আব্দুস সালাম, স্টাফ রিপোর্টার খাইরুজ্জামান সেতু, আলম আশরাফ, উজ্জ্বল মাসুদ, রহমান রনজু, সাইফ জাহান, মাসুম মণ্ডল, অপারেটর মাহবুব হোসেন, উজ্জ্বল হোসেন, হাসান মাহমুদ সুমন, পেস্টার আনারুল ইসলাম লিলটন, সহকারী পেস্টার বখতিয়ার হোসেন, অফিসের ইমরান হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

দৈনিক মাথাভাঙ্গার প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর ঊষালগ্নে কেক কেটে মিষ্টিমুখের সময় সম্পাদক সরদার আল আমিন সকল পাঠক, শুভানুধ্যায়ী ও বিজ্ঞাপনদাতাদের সর্বাত্মক সহযোগিতার ধারা অব্যাহত রাখার আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, মাথাভাঙ্গা সব সময়ই সকলের কথা বলে। প্রকাশনার ২৬ বছরে মাথাভাঙ্গা পরিবার অবশ্যই আরও উদ্যমী হয়ে অনিয়মের মাথা ভাঙবে, সচেতনতার আলো ছড়িয়ে কুসংস্কারের অন্ধকার তাড়াবে। সন্ত্রাস দমনে অগ্রণী ভূমিকা রাখার পাশাপাশি সুন্দর সমাজ গঠনের প্রত্যয়ে এগিয়ে যাবো আমরা।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *