দু শিশু হত্যায় আসামিদের ফাঁসি হাইকোর্টে বহাল

 

স্টাফ রিপোর্টার: রাজধানীর নয়াটোলায় দু শিশু হত্যার দায়ে দু আসামির মৃত্যুদণ্ড বহাল রেখেছেন হাইকোর্ট। জেল আপিল ও মৃত্যুদণ্ডাদেশের অনুমতির শুনানি করে গতকাল মঙ্গলবার বিচারপতি শহিদুল ইসলাম ও বিচারপতি কেএম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় দেন। আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ভীষ্মদেব চক্রবর্তী। আদেশের পর তিনি বলেন, আদালত আসামি লিটন ও রঞ্জনের মৃত্যুদণ্ডাদেশ বহাল রেখেছে। আসামিপক্ষে ছিলেন খবির উদ্দিন ভুঁইয়া। তিনি জানান, ২০০৮ সালের ২৯ এপ্রিল নয়াটোলার পাশাপাশি দুটি বাসার দু শিশু জুয়েল (১০) ও বিপ্লব (৭) হারিয়ে যায়। দু দিন পর পাশের একটি পরিত্যক্ত ভবনে তাদের লাশ পাওয়া যায়। জুয়েলের বাবা আলাল উদ্দিন ১ মে রমনা থানায় অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে মামলা করেন। পরের মাসে লিটন ওরফে কসাই লিটন এবং রঞ্জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। বিচার শেষে ২০০৯ সালের ৫ আগস্ট ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১ আসামিদেরকে মৃত্যুদণ্ড দেয়। আসামিরা ওই রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল করেন। পাশাপাশি মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের অনুমতির জন্য মামলাটি হাইকোর্টে যায়। শুনানি করে উচ্চ আদালত বিচারিক আদালতের সাজাই বহাল রাখার আদেশ দিলেন।

র্মকর্তা এসএনএস যাদব মৃত্যুর সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। ভারতের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা এসএনএস যাদবকে উদ্ধৃত করে একটি বার্তা সংস্থা বলেছে, অন্তত দুটি হাসপাতালে ১২৩ জনকে ভর্তি করা হয়েছে। সরকারি মুখপাত্র রাজেন্দ্র চৌধুরী বলেছেন, প্রায় একডজন কর্মকর্তাকে দায়িত্বে অবহেলার জন্য সাসপেন্ড করা হয়েছে। দোষী কাউকে ছাড়া হবে না। ২০১১ সালে পশ্চিমবঙ্গে এ ধরনের একটি ঘটনায় প্রায় ১৭০ জনের মৃত্যু হয়েছিলো। ২০০৯ সালে গুজরাটে মারা গিয়েছিলো ১০৭ জন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *