দামুড়হুদা নাপিতখালীর শফিউদ্দিনকে কুপিয়ে খুন : নেপথ্য পরকীয়া?

0
35

 

দামুড়হুদা থেকে বখতিয়ার হোসেন বকুল: দামুড়হুদা উপজেলার নাপিতখালী গ্রামের শফি উদ্দিনকে (৪২) এলোপাতাড়ি কুপিয়ে খুন করেছে অজ্ঞাত সন্ত্রাসীরা। গতকাল মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার থেকে পৌনে ১১টার মধ্যে নৃশংস এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে বলে পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে। নিহত শফি উদ্দিন দামুড়হুদা কুনিয়াচাঁদপুর দাখিল মাদরাসার অফিস সহকারী পদে কর্মরত ছিলেন।

জানা গেছে, নাপিতখালী গ্রামের শাহাদত হোসেনের ছেলে শফি উদ্দিন গতকাল মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে মোবাইলফোনে কথা বলতে বলতে বাড়ি থেকে বের হয়ে পার্শ্ববর্তী জনৈক মাবুদের চায়ের দোকানে বসেন। দীর্ঘক্ষণ মোবাইলফোনে কথা বলে শ্যাওড়াতলা মাঠের কাছাকাছি গেলে অজ্ঞাত সন্ত্রাসীরা তাকে তাড়িয়ে ধরে মাঠের মধ্যে মাথায় ও মুখমণ্ডলে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় মৃত ভেবে ফেলে রেখে সটকে পড়ে। মাঠ সংলগ্ন বাড়ির বাসিন্দারা তার গোঙানির শব্দ পেয়ে বের হয়ে এসে রক্তাক্ত শফিকে পড়ে থাকতে দেখেন। তাদের চিৎকারে এলাকাবাসী ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে দ্রুত চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত সাড়ে ১১টার দিকে তিনি মারা যান।

নিহতের স্ত্রী বুলবুলি খাতুন একই ধরনের বর্ণনা দিয়ে জানিয়েছেন, তার স্বামীর সাথে কারো কোনো বিবাদ ছিলো না। মাদরাসার অফিস সহকারী পদে চাকরি করলেও মাঝে মধ্যে ক্লাস নিতেন তিনি। স্বামীকে হারিয়ে এক সন্তানের জননী বুলবুলি খাতুন এখন পাগলপ্রায়। শফি উদ্দিনের একমাত্র ছেলে বাপ্পী এখন ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র।

নিহত শীফউদ্দিনের পরিচয়: নাপিখালী পশ্চিপাড়ার শাহাদত হোসেনের ছেলে শফিউদ্দিন। ৫ ভাই ৩ বোনের মধ্যে তিনি ৪র্থ। শফি উদ্দিন গ্রামে ভদ্র হিসেবে পরিচিত থাকলেও একাধিকসূত্র জানিয়েছে, বিপরীত লিঙ্গের প্রতি তার ছিলো বিশেষ দুর্বলতা। মোবাইলফোনে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কথা বলা চোখ এড়ায়নি গ্রামের অনেকেরই।

গতরাতে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে শফি উদ্দিন মারা যাওয়ার পর পরই কে বা কারা লাশ নিয়ে দ্রুত সটকে পড়ে। রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন চুয়াডাঙ্গার এএসপি (সার্কেল) কামরুজ্জামান। পরিদর্শন শেষে শফি উদ্দিনের লাশ তার বাড়ি থেকে উদ্ধার করে দামুড়হুদা মডেল থানায় নেয়া হয়।

দামুড়হুদা মডেল থানার ওসি (তদন্ত) ফকির আজিজুর রহমান জানিয়েছেন, এ হত্যকাণ্ডের পেছনে বেশ কয়েকটি সম্ভাব্য কারণ রাতেই চিহ্নিত হয়েছে। তিনি আশা করেন, অবিলম্বে এ ঘটনার সাথে জড়িতদের আইনের আওতায় আনা সম্ভব হবে। কী কারণে শফি খুন হলেন? এ প্রশ্নের জবাবে ওসি জানান, তদন্তের স্বার্থে এখন কিছু না বলা গেলেও এ খুনের নেপথ্যে পরকীয়া প্রেমের বিষয়টি জোর দেয়া হচ্ছে বলে এতোটুকু বলতে পারি। ময়নাতদন্ত শেষে শফি উদ্দিনকে নিজ গ্রামে দাফন করা হবে বলে একটি সূত্রে জানা গেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here