দামুড়হুদা দশমীর মৃন্ময় পদ্মায় ডুবে নিখোঁজ : আজ ফের উদ্ধার অভিযান

বান্ধবীর সাথে তুচ্ছ কথাবার্তায় কলেজছাত্রের খুনসুঁটি : নায়কি ভঙ্গিতে নৌকা থেকে ঝাঁপ

দামুড়হুদা প্রতিনিধি: তুচ্ছ কথাবার্তায় প্রেমিকার সঙ্গে খুনসুঁটি হওয়ায় পদ্মা নদীতে ঝাঁপ দিয়েছে কলেজছাত্র দামুড়হুদার যুবক মৃন্ময়। গতকাল রোববার দুপুরে প্রেমিকার সামনে নায়কি ভঙ্গিতে পদ্মায় ঝাঁপ দিয়ে আর উঠতে পারেনি সে। নিখোঁজ আসিফ আল মাসুদ ওরফে মৃন্ময় দামুড়হুদা দশমীর মহাসিন দর্জির ছেলে। সে রাজশাহী মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের মানবিক বিভাগের একাদশ শ্রেণির ছাত্র।
মৃন্ময়ের সহপাঠীরা জানায়, গতকাল রোববার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে রাজশাহীর শ্রীরামপুর অঞ্চলে পদ্মানদীর মধ্যচরের টি বাঁধ এলাকায় নৌকা ভ্রমণে বের হয় তিন যুবক ও তিন যুবতী। এক পর্যায়ে মৃন্ময় নদীতে ঝাঁপ দেয়। এরপর সে আর উঠতে পারেনি। খবর পেয়ে রাজশাহী সদর ফায়ার সার্ভিসের সাত সদস্যের একটি দল দুপুর থেকে খোঁজাখুজি করলেও তার হদিস না মেলায় গতরাত ১০ টার দিকে উদ্ধার অভিযান বন্ধ রাখা হয়। এ তথ্য নিশ্চিত করে রাজশাহী সদর ফায়ার স্টেশনের সিনিয়র স্টেশন অফিসার ফরহাদ হোসেন বলেন, নদীতে স্রোত থাকায় উদ্ধার তৎপরতায় কিছুটা বিঘœ ঘটছে। সন্ধ্যার পরও আলোর ব্যবস্থা করে অভিযান চালানো হয়। আজ সোমবার সকাল থেকে পুনরায় উদ্ধার অভিযান চালানো হবে। নগরীর মতিহার থানার ওসি শাহাদাৎ হোসেন বলেন, রাজশাহী মডেলস্কুল অ্যান্ড কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র আসিফ আল মাসুদ মৃন্ময়সহ কলেজের ৬ শিক্ষার্থী গতকাল রোববার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে পদ্মানদীতে বেড়াতে যায়। এদের মধ্যে তিনজন ছাত্র ও তিনজন ছাত্রী ছিলো। তারা একটি নৌকা ভাড়া নিয়ে ঘুরছিল। এক পর্যায়ে তারা নৌকা নিয়ে চর এলাকা থেকে অনেকটা দূরত্বে চলে যায়। মৃন্ময় নৌকার মাথায় দাঁড়িয়ে সেলফি তুলছিল। এ সময় নৌকায় থাকা তার প্রেমিকার সাথে তুচ্ছ কথাবার্তা নিয়ে খুনসুঁটি হয়। মৃন্ময় নায়কি ভঙ্গিতে নৌকা থেকে পানিতে ঝাঁপ দিয়ে তলিয়ে যায়। অন্য একটি সূত্র বলেছে মৃন্ময় সেলফি তুলতে গিয়ে পা ফঁসকে নৌকা থেকে পড়ে ডুবে যায়। নিখোঁজ মৃন্ময়ের মামা আবদুল মালেক রাজশাহী কলেজের ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক। প্রথমে মৃন্ময় মামার বাড়িতে থেকে পড়ালেখা শুরু করলেও সম্প্রতি মামার বাড়ি ছেড়ে নগরীর একটি ছাত্রাবাসে ওঠে। সে নগরের একটি ছাত্রাবাসে থেকে লেখা পড়া করতো। পুলিশ বলছে, তার সঙ্গে ছিলো প্রেমিকা, দুই বান্ধবী ও দুই বন্ধু। নৌকা ভ্রমণ শেষে ফেরার পথে প্রেমিকার সঙ্গে খুনসুঁটি হয় তার। এরই জেরে নদীতে ঝাঁপ দেয় কলেজছাত্র মৃন্ময়। সাঁতার না জানায় সে পানিতে তলিয়ে যায়। নৌকার মাঝি রকিব উদ্দীন জানান, নৌকার মাথায় দাঁড়িয়ে ছবি তুলছিলো মৃন্ময়। এ সময় পা ফঁসকে পানিতে পড়ে যায়। আমি তাকে তুলতে চেষ্টা করেছি। কিন্তু শেষমেশ সম্ভব হয়নি। তাকে রক্ষা করতে গিয়ে আমি নিজেই পানিতে তলিয়ে যাচ্ছিলাম। কোনোমতে পাড়ে এসে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীদের খবর দেয়া হয়। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স ২য় বর্ষের ছাত্র প্রতীক মোবাইলফোনে প্রতিবেদককে জানান, তারা যে এলাকায় ঘুরছিলো ওই এলাকায় বিপদ সংকেত দেয়া আছে। ওই অঞ্চলে প্রচ- ¯্রােত এবং পনির গভীরতাও অনেক বেশি। মৃন্ময় নিখোঁজের খবর পেয়ে কলেজের অধ্যক্ষসহ অনেকেই ছুটে যান পদ্মাপাড়ে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *