দামুড়হুদা কার্পাসডাঙ্গার ক্লিনিকে আনাড়ি হাতে রোগীর মূত্রনালিতে ক্যাথেডার দেয়ায় বিপত্তি

স্টাফ রিপোর্টার: মূত্রনালিতে ক্যাথেডার দিতে গিয়ে রোগীকে অসহনায় যন্ত্রণার মধ্যেই শুধু ঠেলে দেয়া হয়নি, জটিল পরিস্থিতির মধ্যে ঠেলে দেয়া হয়েছে রোগীকে। গতকাল শনিবার সকালে দামুড়হুদার কার্পাসডাঙ্গাস্থ সেবা ক্লিনিকে ম্যানেজার ও সেবিকা হিসেবে কর্মরত দু নারী এ পরিস্থিতির সৃষ্টি করে। মূত্রনালি দিয়ে অনাবরাত রক্তক্ষরণে রোগী নূরুল ইসলামের শারীরিক পরিস্থিতি ক্রমশ অবনতির দিকে। তাকে গতকালই রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।
জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা দামুড়হুদার ধান্যঘরা গ্রামের মৃত শাহাজ উদ্দীনের ছেলে নূরুল ইসলাম একজন ব্যবসায়ী। গতকাল শনিবার ভোরে তিনি নিজবাড়িতে অসুস্থ হয়ে পড়েন। প্রসাব বন্ধ হয়ে গেলে নেয়া হয় নিকটস্থ কার্পাসডাঙ্গার সেবা ক্লিনিকে। রোগীর লোকজন অভিযোগ করে বলেছেন, সেবা ক্লিনিকে নেয়ার পর ম্যানেজার লুতফর রহমান ও সেবিকা ইতি ও নূপুর রোগীকে ধরে বেধে মূত্রনালিতে ক্যাথেডার দেন। বার বার বলা হয়, তোমরা দিতে না পারলে অহেতুক রোগীকে কষ্ট দিয়ো না। এসব কথায় কান না দিয়ে বার বার চেষ্টা করতে থাকে। আনাড়ি হাতে ক্যাথেডার দিতে গিয়ে শেষ পর্যন্ত রক্তক্ষরণ শুরু হয়। অনাবরত রক্তক্ষরণ দেখে এক সেবিকা তো দ্রুত সটকে পড়ে। উপায় না পেয়ে রোগী নূর ইসলামকে দ্রুত চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। রোগীর অবস্থা দেখে কর্তব্যরত চিকিৎসক বলেন, রোগীর অবস্থা গুরুতর। রক্তক্ষরণ বন্ধে দ্রুত রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিতে হবে। রোগী নূর ইসলামকে গতকালই রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। শেষ পর্যন্ত তার ভাগ্যে কি ঘটেছে তা অবশ্য জানা জায়নি।

Leave a comment

Your email address will not be published.