দামুড়হুদায় তিন সোনার দোকানে ডাকাতি মামলায় পার-দামুড়হুদার শফি আটক : মালামাল উদ্ধার

 

স্টাফ রিপোর্টার: অবশেষে সিআইডির হস্তক্ষেপে দামুড়হুদা বাজারে তিন সোনার দোকানে আলোচিত ডাকাতি মামলাটি আলোর মুখ দেখতে শুরু করেছে। ডাকাতি ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে সিআইডির একটি বিশেষ টিম (বিশেষ কৌশলে অবলম্বন করে) লুঙ্গি পরে গামছা মাথায় দিয়ে লেবার সেজে গতকাল রোববার বিকেলে দামুড়হুদা থানা পুলিশের সহযোগিতায় চিৎলা হাসপাতালে পেছনের একটি বাগান থেকে পার-দামুড়হুদার আব্দুল ওহাব ওরফে ছুট্টির ছেলে শফিকুল ইসলাম শফিকে (৩৭) আটক করে। আটকের পর তাকে চুয়াডাঙ্গা সিআইডি শাখায় নিয়ে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সিআইডি ইন্সপেক্টর শরীফ মঞ্জুর। তার স্বীকারোক্তিতে আটক শফিকে সাথে নিয়ে গতকাল রাত সাড়ে ১০টার দিকে শফির পার-দামুড়হুদাস্থ নিজ ঘরের খাটের নিচে পেতে রাখা তোষকের মধ্য থেকে উদ্ধার হয়েছে ডাকাতি হয়ে যাওয়া সোনার আংশিক মালামাল। মালামাল উদ্ধার শেষে তাকে আবারো ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয় চুয়াডাঙ্গা সিআইডি কার্যালয়ে। দামুড়হুদা বাজারে তিন সোনার দোকানে আলোচিত ডাকাতি মামলায় পার-দামুড়হুদার শফি আটক হয়েছে এ খবর জানাজানি হলে দামুড়হুদার আলোচিত শফির ঘনিষ্ঠ এক যুবক গাঢাকা দিয়েছে বলে একটি সূত্র জানিয়েছে। সিআইডি ইন্সপেক্টর শফিকুল ইসলাম জানান, আটক শফির কাছ থেকে অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে এবং আরো তথ্য পাওয়া যাবে। তবে মামলার তদন্তে স্বার্থে তা এখনই প্রকাশ করা সম্ভব নয় বলে তিনি মাথাভাঙ্গা প্রতিবেদককে জানান।

উল্লেখ্য, গত ৯ জানুয়ারি গভীররাতে দামুড়হুদা বাজারে পাহারারত ৫ নৈশপ্রহরীকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে সংঘবদ্ধ ডাকাতদল হীরা জুয়েলার্স, লিপি জুয়েলার্স ও আপন জুয়েলার্স এ ৩ সোনার দোকান ভেঙে ১২০ ভরি স্বর্ণালঙ্কারসহ প্রায় কোটি টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। ঘটনার পরদিন দামুড়হুদা থানায় মামলা হয়। দামুড়হুদা বাজার বণিক সমিতির পক্ষ থেকে ডাকা হয় জরুরিসভা। জরুরিসভায় বাজার বণিক সমিতির নেতৃবৃন্দ ডাকাতি হয়ে যাওয়া মালামাল উদ্ধার ও ডাকাতির সাথে জড়িতদের গ্রেফতারের জন্য পুলিশ প্রশাসনের প্রতি ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম ঘোষণা করেন। জেলা জুয়েলারি মালিক সমিতির পক্ষ থেকেও জেলা পর্যায়ে মানববন্ধনসহ পালন করা হয় নানা কর্মসূচি। ডাকাতি মামলাটি ৫ মাস পেরিয়ে গেলেও থানা পুলিশ ডাকাতি হয়ে যাওয়া মালামাল উদ্ধার ও ডাকাতি ঘটনার সাথে জড়িত কাউকে গ্রেফতার করতে না পারায় আলোচিত এ ডাকাতি মামলাটি শেষমেশ গত ১৩ জুন সিআইডির কাছে হস্থাস্তারিত হয়। এর দুদিনের মাথায় দুর্ধর্ষ এ ডাকাতি ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে হীরা জুয়েলার্সের প্রধান কর্মচারী দামুড়হুদা দশমীপাড়ার মৃত মহি উদ্দিনের ছেলে ঈমান আলীকে (৩২) সিআইডি শাখার সদস্যরা আটক করে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য জেলা গোয়েন্দা শাখা কার্যালয়ে নেয়া হয় এবং প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাকে বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করা হয়। সে বর্তমানে জামিনে আছে। এ দিকে এ মামলায় পার-দামুড়হুদার শফি আটক হয়েছে এ খবর জানাজানি হলে দামুড়হুদার আলোচিত এক যুবক গাঢাকা দিয়েছে বলে একটি সূত্র জানিয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published.