দামুড়হুদায় আবারও জিনের বাদশা সেজে প্রতারণা : রোগ সারানোর নামে হাতিয়ে নিয়েছে মোটা অঙ্কের টাকা

 

দামুড়হুদা প্রতিনিধি: দামুড়হুদায় আবারও জিনের বাদশা সেজে প্রতারণা করে মধু, দুধ আর জায়নামাজ কেনার নামে হাতিয়ে নিয়েছে মোট অঙ্কের টাকা। এবার কথিত জিনের বাদশার প্রতারণার ফাঁদে পা দিয়েছেন বিষ্ণুপুরের দিনমজুর মোক্তার হোসেন (৩৫)। তিনি এ সংক্রান্তে গতকাল শুক্রবার দামুড়হুদা থানায় একটি সাধারণ ডাইরি করেছেন।

জানা গেছে, দামুড়হুদা উপজেলার জুড়ানপুর ইউনিয়নের বিষ্ণুপুর গ্রামের মৃত রহমত আলীর ছেলে সহজ সরল দিনমজুর মোক্তার হোসেন অন্যান্য দিনের মতো রাতের খাবার খেয়ে ঘুমিয়ে ছিলেন। গত ৬ আগস্ট গভীর রাতে তার মোবাইলফোনের রিংটন বেজে উঠে। মোবাইলফোন রিসিজ করতেই অপর প্রাপ্ত থেকে জিনের বাদশা পরিচয় দিয়ে বলে তোর যে কঠিন রোগ আছে আমি তা সেরে দেবো। জিনের বাদশার নাকে কথায় কিছুটা ভীত হয়ে পড়েন সহজ-সরল দিনমজুর মোক্তার। জিনের বাদশা তাকে বলে তুই গরীব মানুষ, তোর কাছে কোন টাকা পয়সা নেবো না। তবে হাদিয়া বাবদ এক হাজার টাকা বিকাশ করে দিবি। জিনের বাদশার কথামত পরদিন এক হাজার টাকা বিকাশ করে দিনমজুর মোক্তার। এরপর  জিনের বাদশা মোক্তারকে কব্জায় এনে বলে তোর রোগ সারতে ১০ কেজি মধু, ১০ কেজি দুধ এবং ২টি জায়নামাজ কেনার জন্য ২০ হাজার টাকা বিকাশ কর। মোক্তার সেদিনও ১৯ হাজার টাকা বিকাশ করে। এভাবে পর্যায়ক্রমে মোট ৩৫ হাজার টাকা দেয়ার পর তাকে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে জিনের বাদশা তার কাছে আরও টাকা দাবি করে। আসলেই কি রোগ সারাতে না কি কোনো টোপে পড়ে এতো টাকা গচ্চা গেলো জানতে চাইলে ক্ষতিগ্রস্ত মোক্তার বলেন, আমার জিনের আছর আছে। কোনো লোভে পড়ে আমি টাকা দেইনি।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *