দাওয়ায় নিয়ে অনিশ্চয়তার মধ্যে কিশোরী জান্নাতুলের জীবন

চুয়াডাঙ্গা জীবননগরের পল্লিতে কবিরাজের অপচিকিৎসা অব্যাহত

 

কামরুজ্জামান বেল্টু: জীবননগর শ্যামকুড়ের এক কবিরাজের অপচিকিৎসায় একই গ্রামের কিশোরী জান্নাতুলের জীবন চরম অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়েছে। জলাতঙ্ক রোগে আক্রান্ত অবস্থায় গতকাল মঙ্গলবার চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। চিকিৎসকেরা বলেছেন, যথাসময়ে ভ্যাকসিন না দেয়ায় জান্নাতুলের জীবন এখন অনিশ্চয়তার মধ্যে।

শ্যামকুড়ের আমিরুল ইসলামের মেয়ে জান্নাতুলকে (১৪) দু মাস আগে কুকুরে কামড়ায়। জলাতঙ্কে রোগের ৱ্যাবিস ভ্যাকসিনের বদলে তাকে নেয়া হয় প্রতিবেশী কবিরাজ এনামুলের নিকট। এনামুল গাছড়া ওষুধ দেয়। তিনদিন পর বিষ কেটে গেছে বলে জানায়। সম্প্রতি জান্নাতুলের পেটে যন্ত্রণা শুরু হলে কবিরাজ এনামুল পিটে থালাপড়া লাগিয়ে বলে, বিষ এখনও আছে। আরো গাছড়া খাওয়াতে হবে। গাছড়া খাওয়ানোর পর জান্নাতুলের শারীরিক অবস্থার উন্নতির বদলে অবনতিই হতে থাকে। উপায় না পেয়ে গতকাল চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করানো হয়। চিকিৎসক প্রাথমিক সিমটম দেখে বলেন, কিশোরী ইতোমধ্যেই জলাতঙ্ক রোগে আক্রান্ত হয়েছে বলে আমরা ধারণা করছি।

কুকুরে কামড়ানোর পর তাকে হাসপাতালে না নিয়ে কবিরাজের দাওয়ায় সেবনে জান্নাতুলের অবস্থা সঙ্কাটাপন্ন হয়ে উঠেছে। তাকে দেখে স্বাস্থ্য সচেতন অনেকেই প্রশ্ন তুলে বলেছেন বলেছেন, আর কতোদিন এভাবে কবিরাজের অপচিকিৎসায় আর কতোজনকে অকালে মৃত্যুর দিকে ধাবিত হবে? জবাব দেবে কে?

Leave a comment

Your email address will not be published.