দর্শনা রেলইয়ার্ডে লুটেরাদের আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে মারামারি

শান্তিপাড়ার ঘটুসহ পরিারের ৪ জন জখম

দর্শনা অফিস দর্শনা রেলইয়ার্ডে আবারো আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে লুটেরাদের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। একপক্ষের হামলায় অপরপক্ষের ঘটু ও তার পরিবারের ৪ জন জখম হয়েছেন। চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জানা গেছে, গতপরশু রোববার রাত ২টার দিকে দর্শনা রেলইয়ার্ডে রক্ষিত মালামাল ভর্তি ওয়াগন থেকে লুটপাট চলছিলো। ইয়ার্ডে বেশ কয়েকটি লুটেরাচক্রের মধ্যে রয়েছে দর্শনা পৌর শহরের শান্তিপাড়ার আ. খালেকের ছেলে সোহাগ ওরফে ঘটুচক্র। অভিযোগ উঠেছে, ঘটু ও তার লুটেরাবাহিনী সয়াবিন ভূষি লুটপাট করার সময় অপর একটি লুটেরাচক্র হামলা চালায়। হামলাকারীরা ঘটুকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে ফেলে রাখে। খবর পেয়ে ঘটুর পরিবারের সদস্যরা ইয়ার্ড এলাকায় খোঁজাখুঁজি করে মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে উদ্ধার করেন। এ সময় হামলাকারীরা ফের হামলা চালিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করে আ. খালেক (৫০), তার ছেলে ৫ম শ্রেণির ছাত্র আশিক ও মেয়ে ১০ম শ্রেণির ছাত্রী মৌসুমীকে। ঘটুর পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, মুমূর্ষু অবস্থায় ঘটুসহ আহত ৪ জনকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য দামুড়হুদা উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। অভিযোগে আরো বলা হয়, হামলাকারীদের মধ্যে ছিলো ইয়ার্ডের সরদার বাবলু, ইসলামবাজারপাড়ার রহমান, মোবারকপাড়ার শামীম ও মাসুমসহ ৭/৮।

এদিকে অভিযুক্তরা তাদের বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগ অস্বীকার করেছে। বাবলু অসুস্থতার কারণে বাড়িতে ছিলো বলে জানিয়েছেন। তিনি আরো জানান, ঘটু ইয়ার্ডের চিহ্নিত লুটেরাচক্রের হোতা। লুটপাটের সময় নিজেদের মধ্যে দ্বন্দ্ব হতে পারে। রহমান, শামীম ও মাসুম দু দিন ধরে কুষ্টিয়ায় অবস্থান করছে বলে জানিয়েছেন মোবাইলফোনে। এ ঘটনায় ঘটুর মা নাজমা থানায় হামলাকারীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন বলে জানালেও থানার অফিসার ইনচার্জ আহসান হাবীব বলেছেন, এ ধরনের কোনো অভিযোগ কিংবা মামলা থানায় কেউ করেনি।

Leave a comment

Your email address will not be published.