দর্শনা ও মুজিবনগর পরিদর্শনকালে গওহর রিজভী

 

বাংলাদেশভারতের মধ্যে অমমাংসিত বিষয়গুলো দ্রুত নিষ্পত্তি করা হবে

মাথাভাঙ্গা ডেস্ক: গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভী রাষ্ট্রীয় সফরে চুয়াডাঙ্গার দর্শনা মেহেরপুরের মুজিবনগরে এসেছেন। গতকাল মঙ্গলবার পৃথক পৃথক সময়ে তিনি দর্শনা ও মুজিবনগর ভ্রমণ করেন।

দর্শনা অফিস জানিয়েছে, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভী রাষ্টীয় সফরে এসেছিলেন দর্শনায়। গতকাল মঙ্গলবার তিনি চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য হাজি আলী আজগার টগরসহ দলের নেতাকর্মী ও জেলার বিভিন্ন কার্যালয়ের কর্মকর্তাদের সাথে নিয়ে দর্শনা আন্তর্জাতিক রেল স্টেশন, জয়নগর সীমান্ত ও কেরুজ চিনিকলের ডিস্টিলারি বিভাগ পরিদর্শন করেছেন। বেলা ১১টার দিকে ড. গওহর রিজভী গাড়িবহরযোগে দর্শনায় পৌঁছান। এ সময় আ. লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা সহকারে তাকে অভ্যর্থনা দেয়া হয়। ড. গওহর রিজভী প্রথমেই পরিদর্শন করেন দর্শনা আন্তর্জাতিক রেল স্টেশন। সেখানে কথা বলেন, স্টেশনের বিভিন্ন বিভাগের কর্মকর্তাদের সাথে। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে যান জয়নগর সীমান্তে। সেখান থেকে বিএসএফ’র পক্ষ থেকে তাকে অভ্যর্থনা সহকারে নিয়ে যাওয়া হয় গেদে স্টেশন এলাকায়। দুপুর ১২টার দিকে গেদে থেকে ফিরে দর্শনা জয়নগর সীমান্তে বিজিবি ও বিএসএফ’র কর্মকর্তাদের সাথে সীমান্ত হাটসহ বিভিন্ন বিষয়ে সংক্ষিপ্ত আলোচনা করেন। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে পরিদর্শন করেন কেরুজ চিনিকলের ডিস্টিলারি বিভাগ। এ সময় ড. গওহর রিজভীকে চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য হাজি আলী আজগার টগর ও কেরুজ চিনিকলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কৃষিবিদ আজিজুর রহমান ফুলেল শুভেচ্ছা দেন। ডিস্টিলারি বিভাগ পরিদর্শন শেষে তিনি গাড়িবহরযোগে দর্শনা ত্যাগ করেন। দর্শনার তিনটি স্থান পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ড. গওহর রিজভী বলেন, বিগত দিনের তুলনায় বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে সুসম্পর্ক ও ভ্রাতৃত্ববোধ আরো বৃদ্ধি পাবে। ভারতের সাথে আমাদের সম্পর্ক ভালো ছিলো, আছে এবং থাকবে। সীমান্তে হাট বসলে দু দেশের মানুষের মধ্যে সৃষ্টি হবে সুযোগ-সুবিধা। তবে এ এলাকার উন্নয়নের ক্ষেত্রে এমপি আলী আজগার টগরের রয়েছে চরম আন্তরিকতা। তারই আমন্ত্রণে দর্শনায় পরিদর্শনে এসেছি। তাই এলাকার উন্নয়নের জন্য যা যা করণীয় তা আমি করবো। সেই সাথে দর্শনা-গেদে ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট দিয়ে যাত্রীদের যাতায়াতের জন্য এ স্থলপথটির উন্নয়ন করা যায় কি-না সেদিকে নজর দেয়া হবে। এ ছাড়া দর্শনা আন্তর্জাতিক স্টেশনে যাত্রী ওঠা-নামার করণের বিষয়ে তিনি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা করবেন বলেও আশ্বাস দেন। ড. গওহর রিজভী দর্শনার তিনটি স্থান পরিদর্শনকালে তার সাথে ছিলেন, চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য হাজি আলী আজগার টগর, চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক মো. দেলোয়ার হোসাইন, চুয়াডাঙ্গা-৬ বর্ডারগার্ডের পরিচালক লে. কর্নেল এসএম মনিরুজ্জামান, ভারতের বিএসএফ’র ১১৩ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক শ্রী ভিরেন্দ্র দত্ত, চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার রশীদুল হাসান, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের উপপরিচালক আলী নেওয়াজ রাসেল, কেরুজ চিনিকলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কৃষিবিদ আজিজুর রহমান, চুয়াডাঙ্গার অতিরিক্ত জেলা প্রসাশক মল্লিক সাঈদ মাহবুব, দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফরিদুর রহমান, দর্শনা কাস্টমসের সহকারী কমিশনার বজলুর রশিদ, দামুড়হুদা উপজেলা আরএনবির রাজশাহী অঞ্চলের কমান্ডেন্ট শাহ আলম, দর্শনা আন্তর্জাতিক রেলস্টেশন মাস্টার মীর লিয়াকত আলী, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের মধ্যে ছিলেন জীবননগর উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ অমল, দামুড়হুদা উপজেলা আ. লীগের সভাপতি সিরাজুল আলম ঝন্টু, সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান মঞ্জু, যুগ্মসম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান জাকারিয়া আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, দর্শনা পৌর আ. লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক সাবেক পৌর মেয়র মতিয়ার রহমান, আ. লীগ নেতা শফিকুল আলম, গোলাম ফারুক আরিফ, আলী মুনসুর বাবুসহ যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ।

মুজিবনগর প্রতিনিধি জানিয়েছে, প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভী বলেছেন,বাংলাদেশের সাথে ভারতে অসাধারণ সম্পর্ক। যা কিছু সমস্যা ছিলো গত পাঁচ বছর তা আমরা সমাধান করেছি। ভারতের মাঝে সব সময় বন্ধু প্রতীম সম্পর্ক ছিলো এবং থাকবে। ভারতের নতুন সরকার গঠন হলেই অমীমাংসিত বিষয়গুলো দ্রুত নিষ্পতির লক্ষ্যে দুদেশের উচ্চ পর্যায়ে আলোচনা করা হবে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে মেহেরপুরে ঐতিহাসিক মুজিবনগর কমপ্লেক্স ঘুরে দেখার সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি একথাগুলো বলেন।

এসময় মেহেরপুর জেলা প্রশাসক মাহমুদ হোসেন,গণপূর্ত অধিদফতরের নির্বাহী প্রকৌশলী আসহান উল্লাহ,মুজিবনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার অরুন কুমার মণ্ডল, জেলা আওয়ামীলীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক আয়ূব হোসেনসহ সরকারি কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

দুপুরে চুয়াডাঙ্গার দর্শনা থেকে সড়ক পথে মুজিবনরে পৌঁছান ড. গওহর রিজভী। পরে মেহেরপুর সার্কিট হাউজে সরকারি কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় করেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *