তফশিল স্থগিত করে দেশ বাঁচান-খালেদা জিয়া

স্টাফ রিপোর্টার: ঘোষিত তফশিল স্থগিত করে দেশ বাঁচাতে নির্বাচন কমিশনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বিরোধী নেতা ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। সেইসাথে প্রহসনের নির্বাচন প্রক্রিয়ায় জড়িত না হতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি অনুরোধ ও শান্তিপূর্ণভাবে আন্দোলন চালিয়ে যেতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান তিনি। গতকাল এক বিবৃতিতে তিনি এ আহ্বান জানিয়েছেন। খালেদা জিয়া বলেন, নির্বাচন কমিশনকে বলবো, প্রহসনের একতরফা নির্বাচনের উদ্যোগ নিয়ে বিশেষ দলের ক্রীড়নক হিসেবে ব্যবহৃত না হয়ে ঘোষিত তফশিল স্থগিত করে দেশকে বাঁচান। প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতি আমার আহ্বান, আপনারা নিরপেক্ষভাবে দায়িত্ব পালন করুন।

আমি বিস্মিত, বেদনাহত: খালেদা জিয়া বলেন, আমি বিস্মিত, হতবাক, ক্ষুব্ধ ও বেদনাহত। চরম আক্রমণাত্মক স্বৈরশাসনের কবল থেকে গণতন্ত্র, মানবাধিকার, ভোটাধিকার রক্ষা, প্রহসনের একতরফা নির্বাচন আয়োজনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে এবং নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে সকল দলের অংশগ্রহণের ভিত্তিতে একটি সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন পদ্ধতির দাবিতে ১৮ দলীয় জোট এবং অন্যান্য গণতান্ত্রিক দল, পেশাজীবীরা আন্দোলন গড়ে তুলেছেন। সেই আন্দোলনের পাশাপাশি অজ্ঞাত-পরিচয় দুর্বৃত্তরা নিরীহ নিরপরাধ সাধারণ মানুষের ওপর পৈশাচিক হামলা চালিয়ে তাদের জীবন কেড়ে নিচ্ছে। যাত্রীবাহী যানবাহনে বোমা মেরে, আগুন দিয়ে নাগরিকদের জীবন্ত দগ্ধ করছে। বৃদ্ধ, নারী ও শিশুরা শিকার হচ্ছে এ জঘন্য হামলার। অগ্নিদগ্ধ মানুষেরা হাসপাতালে তীব্র যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছে। তাদের করুণ আর্তনাদ আমাদের জননিরাপত্তা ব্যবস্থার ক্ষমাহীন ব্যর্থতাই প্রকটভাবে ফুটিয়ে তুলছে। খালেদা জিয়া বলেন, এসব বর্বর হামলা ও নিষ্ঠুর হত্যাকাণ্ডের আমি তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। পরিকল্পিত নাশকতায় যারা জীবন দিয়েছেন তাদের রুহের মাগফিরাত কামনা করছি। আহত ও ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারবর্গের প্রতি জানাচ্ছি গভীর সহানুভূতি ও সমবেদনা। বিরোধী নেতা বলেন, রাজধানীর বিভিন্ন কেন্দ্রে আইনশৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা বাহিনীর সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থানের ভেতরে এসব নারকীয় হামলার ঘটনায় দেশবাসীর সাথে আমিও প্রবলভাবে বিস্মিত। এমন বীভৎস ঘটনা ঘটিয়ে অপরাধীরা নিরাপদে পার পেয়ে যাওয়া এবং এ পর্যন্ত ঘটনাস্থল থেকে একজনও গ্রেফতার না হওয়ার রহস্য কারও কাছে বোধগম্য নয়। ১৮দল নেতা বলেন, ক্ষমতায় থাকার উদগ্র বাসনায় বিরোধী দলসহ জনগণের আন্দোলন দমন এবং নিজেদের নিরাপত্তা রক্ষায় ব্যতিব্যস্ত সরকার। কারও কোনো সন্দেহ নেই, আজ জনগণের জীবনের নিরাপত্তাটুকু দিতেও সম্পূর্ণ ব্যর্থ এ সরকার।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *